দীর্ঘ ২৪০ বছর আগে বিলুপ্ত হওয়া সাদা লেজের শিকারী ঈগলের দেখা মিলল আবারো আকাশে!!


অথর
বিলুপ্তির পথে নিউজ ডেক্স   ফিচার
প্রকাশিত :২২ মে ২০২০, ১২:০০ অপরাহ্ণ | পঠিত : 126 বার
0
দীর্ঘ ২৪০ বছর আগে বিলুপ্ত হওয়া সাদা লেজের শিকারী ঈগলের দেখা মিলল আবারো আকাশে!!

আজ থেকে প্রায় ২৪০ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া সাদা লেজের শিকারী ঈগলের আবারো দেখা মিলল ইউনাইটেড কিংডম এর নীল আকাশে। যদিও এই প্রজাতি’টি এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে তবে সংরক্ষণ বিদরা আকাশে এটিকে উড়তে দেখে বেজায় খুশি। এর আগে প্রায় অষ্টাদশ শতকের সময় এইভাবে প্রায়ই ইংল্যান্ডের আকাশে দেখা যেত উড়তে এই পাখিটিকে। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলে পরবর্তীকালে যত সময় যেতে থাকে তত প্রাকৃতিক বিবর্তন ও শিকারীদের পাল্লায় পড়ে এই পাখিটি ক্রমশ কমতে শুরু করে। এটি কে ১৭৮০ সালে কালভার ক্লিফে সর্বশেষ দেখা গিয়েছিল।এই শিকারি পাখিটি প্রায় ২.৫ মিটার লম্বা টানা বিশিষ্ট। গত ১৯১৮ সালে বিভিন্ন প্রাকৃতিক কার্যকলাপের ফলে বিলুপ্তির পথে এগিয়ে

যায় এটি। শুধু তাই নয় সেই সময় স্কটিশ শেটল্যান্ড আইল্যান্ডে একসঙ্গে অনেকগুলো পাখিকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। তারপর এই বিষয়ে রয়েল সোসাইটি ফর প্রটেকশন অফ বোর্ড এর তরফ থেকে একটি তথ্য প্রকাশ করা হয় যেখানে বলা হয় দিন দিন কমছে সামুদ্রিক ঈগলের সংখ্যা। যদিও এই পাখিটি কে আবার ফিরে নিয়ে আসার জন্য দুটি সংস্থার এই বিষয়ে কাজ করছিল।আর এবার প্রায় দুই শতাব্দী পর আবারও দেখা গেল সেই পাখিটি কে আকাশে উড়তে। আর এবার এই ফাউন্ডেশনের কর্ণধর রায় ডেনিস জানান আমি আমার জীবনের বেশিরভাগ সময় কাটিয়ে দিয়েছি এই পাখিগুলোকে পুনরায় ফিরিয়ে আনার জন্য কাজ করতে করতে। আর আবারো এই

পাখিটিকে আকাশে উড়তে দেখে সেই মুহূর্তটা আমার কাছে কতখানি গুরুত্বপূর্ণ তা আপনাদের বলে বোঝানো যাবে না। তার পাশাপাশি তিনি জানান গত বছর গ্রীষ্মকালে ৬ টি সাদা বাচ্চা ঈগলকে আনা হয়েছিল যাদেরকে ছাড়া হয়েছিল ইংল্যান্ডের দক্ষিণাংশে।আর এই ঈগল গুলির মধ্যে রয়েছে ছেলে এবং মেয়ে উভয় ঈগল যদিও এক্ষেত্রে সাধারণত পাঁচ বছর না হওয়া পর্যন্ত তারা বংশবিস্তার করে না। তাই এই ফাউন্ডেশানের দাবি যে জুটি গুলিকে তারা এনেছে সেইগুলি আগামী দিনে নতুন শিশু জন্ম দেবে যার ফলে এই ঈগলের সংখ্যাও বাড়বে ভবিষ্যতে। এক্ষেত্রে এই পুরুষ ঈগল পাখি গুলির একটি বিশেষত্ব হলো তারা বসন্তকালে ডাকাডাকি করে কিংবা আকাশের মধ্যেই ডাকাডাকি করে নানা রকম ভাবে তাদের সঙ্গিনীর দৃষ্টি আকর্ষন করার চেষ্টা করে।

No Comments