সন্তান না কাঁদলে মা কিন্তু দুধ দেয় না।


অথর
বিবিধ সংবাদ ডেক্স   ডোনেট বাংলাদেশ
প্রকাশিত :৭ মার্চ ২০২০, ৫:২৭ অপরাহ্ণ | পঠিত : 246 বার
0
সন্তান না কাঁদলে মা কিন্তু দুধ দেয় না।

জাতীয়করণ আদায়ের লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট বার্তা প্রেরণের জন্য রাজপথে কাঁদ বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক সমাজ। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক সমাজ আর কতকাল চুপ করে বসে থাকবেন ২৫ শতাংশ ঈদ বোনাস, ১০০০ টাকা বাড়ি ভাড়া, ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা, নেই পেনশনের সুযোগ সুবিধা, নেই সন্তানের শিক্ষা ভাতা, নেই গৃহঋণের সুযোগ সুবিধা, নেই বদলি প্রথা এর পরও কি চুপ করে বসে থাকবেন আপনারা? এবার একটু ভেবে দেখুন আপনারা কি করবেন বসে থাকবেন নাকি নিজ অধিকার আদায়ে রাজপথে নামবেন। আপনাদের বিবেকের কাছে প্রশ্ন রাখলাম। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষক সমাজ একটি কথা স্মরণ রাখতে হবে আমরা যদি না কাঁদি তাহলে কিন্তু আমাদের স্বপ্নের জাতীয়করণ কখনো পূর্ণ

হবে না। আমাদের দাবিকে বেগবান করার জন্য বর্তমানে আন্দোলনের বিকল্প কিছুই হতে পারে না। তাই আমাদের উচিত এখনই সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে জাতীয়করণ আদায়ের পক্ষে জাগ্রত হওয়া। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আমাদের দাবি সম্পর্কে বুঝাতে হবে। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ করলে লাভই হবে ক্ষতি হবে না। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আয় ব্যায়ের হিসেব বুঝে নিয়ে যদি জাতীয়করণ করা হয় তাহলে সরকারের লাভ হবে। আমরা অনেক বার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বাক্ষাৎ পাবার জন্য চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু দুঃখের বিষয় আজও পেলাম না অনুমতি। তাই এখন রাজপথই আমাদের সর্বশেষ উপায়। আগামী মুজিববর্ষেই জাতীয়করণ চাই এই উদ্দেশ্যে ৯ মার্চ অবস্থান ধর্মঘট ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে আপনারা স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে অংশ গ্রহণ করে আসুন আমরা দাবি আদায়ে এগিয়ে যাই। রাজপথে নামার বিকল্প কিছু উপায় নেই আমাদের। আমরা আন্দোলনে নামলে আশা করি অবশ্যই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কানে এই সংবাদ টুকু পৌঁছাবে। আমরা কিন্তু দফায় দফায় অনেক বার জাতীয়করণের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারক লিপি দিয়েছি। জানি না আমাদের এই স্মারক লিপি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেখেছেন কিনা। যদি দেখে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমাদের স্বপ্ন পূরণ হতে পারে শতভাগ এটাই প্রত্যাশা পাঁচ লক্ষ বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের।জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ

করার। জাতীয়করণের ঘোষণা চাই এই মুজিববর্ষেই। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে তাই আশা করি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এই মুজিববর্ষে আমাদের নিরাশ করবেন না। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের স্বপ্ন পূরণে তারই সুযোগ কন্যা বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা অবশ্যই পূরণ করবেন বলে আশা করি। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দিতে দৃঢ় মনোবল নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন আজ একটু একটু করে বাস্তবে রুপ নিচ্ছে। দেশ আজ মধ্যম আয়ের দেশে পৌঁছে

গেছে এবং উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় দ্বিতীয়। শিক্ষা ব্যবস্থার সকল বৈষম্য দূরীকরণের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন পূর্ণতা পাবে। বেসরকারি এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বিনীত অনুরোধ রইল আপনি শিক্ষা ব্যবস্থার বৈষম্য দূরীকরণে বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করে আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন জাতীয়করণের ঘোষণা দিয়ে বৈষম্যের বেড়াজাল থেকে মুক্ত করুন।

No Comments