মানবতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত -খোকসা থানার ওসি মজিবুর


অথর
সদর উপজেলা সংবাদদাতা   কুষ্টিয়া, খুলনা
প্রকাশিত :১৮ এপ্রিল ২০২০, ১:৪২ অপরাহ্ণ | পঠিত : 413 বার
0
মানবতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত -খোকসা থানার ওসি মজিবুর

কুষ্টিয়া জেলার সর্ব কনিষ্ঠ উপজেলা খোকসা। এই থানাতে গত ৩ রা ডিসেম্বর ৩৩ তম অফিসার ইনচার্জ হিসাবে মজিবুর রহমান দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। তিনি দায়িত্ব গ্রহণের পর মানবতার একের পর এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রেখেই চলেছেন। তিনি মাদক, সন্ত্রাস, জংগীবাদ কঠোর হাতে নির্মূল করেছেন । যোগদানের দুই মাস ১২ দিনের মাথায় স্পর্শকাতর মামলাসহ মাদকের ১১টি মামলায় মোট ১৬ জন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছেন তিনি । শুধু তাই নয় গরীবের লেখাপড়ার দায়িত্বও তিনি নিয়েছেন। বাজার নিয়ন্ত্রণেও তাঁর ভূমিকা প্রশংসনীয়। আর তাঁর নিজের কর্মস্থল খোকসা থানাকে আধুনিকায়নেও যেন কমতি রাাখেননি। থানায় জিডি এবং মামলা করতে কোন টাকা লাগেনা এই ব্যানার থানায় প্রবেশদ্বারে পরিলক্ষিত হয়।

"হ্যাঁ" কথা আর কাজে ঠিক মিল রেখে সদা হাস্যজ্বল এই ওসি মজিবুর খোকসার মানুষের অন্তরে যেন তিনি নিজের জায়গা করে নিয়েছেন। রাজনৈতিক নেতৃবৃৃৃন্দের সাথে সামাজিক কর্মকাণ্ডেও তাঁর যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে । গণমাধ্যম কর্মিদের সাথে শলা- পরামর্শে তিনি কমতি রাখেননি। এদিকে আইনসেবা ও শৃঙ্খলা রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখায় অগ্রগামী মিডিয়া ভিশন পদক পেয়েছেন খোকসা থানার এই ও সি মজিবুর রহমান । গত ১০ মার্চ রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনষ্টিটিউটে আনুষ্ঠানিক ভাবে ঘোষণা আসে তাঁর নাম। আর সেই পদক ও সনদ গত ২৫ শে মার্চ বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করেন তিনি।করোনা প্রতিরোধে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে জানতে চাইলে খোকসা আইন শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর এই কর্মকর্তা

বলেন, আমরা সাধারণ মানুষকে নিয়মিতভাবে সচেতন করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। তাদেরকে বাড়িতে থাকার জন্য আমাদের পুলিশ সদস্য সার্বক্ষণিক মাঠে রয়েছে । কেউ যেন অনাহারে না থাকে সে জন্য আমি নিজে মধ্য রাতেও মানুষের ত্রান পৌঁছে দিয়েছি । এ জন্য আমরা খোকসা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটা হট লাইন নাম্বার চালু রেখেছি ত্রান পৌঁছে দেবার জন্য । এ ছাড়াও নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকানপাট ব্যতীত সকল দোকানপাট বন্ধ করা হয়েছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সন্ধ্যা ৬ টা থেকে সকাল ৬ টা পর্যন্ত কেউ যেন বাইরে ঘোরাঘুরি না করে সে জন্য আমি এবং আমার বাহিনী সার্বক্ষণিক মাঠে রয়েছি ও নিয়মিতভাবে করোনাভাইরাস সচেতনতা মুলক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি।এ ছাড়াও খোকসা থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান বলেন, খোকসা থানাকে ডিজিটাল খোকসা থানা হিসেবে গড়ে তুলতে চাই -এজন্য আমার অর্জন আমি খোকসার জনগণকে উৎসর্গ করছি। আইনের শাসন নয় বরং আইনের সঠিক প্রয়োগের মাধ্যমে মানুষকে আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার বিষয়টি তুলে ধরার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে চলেছি। সকল প্রকার সুখ-দুঃখে পুলিশ থাকবে জনগণের বন্ধু হিসাবে। আর সেই লক্ষ্যেই জনগণের সর্বোচ্চ সেবা প্রদান করাই হচ্ছে আমার মূল উদ্দেশ্য ।মানবতার এই উজ্জ্বল দৃষ্টান্তকারী ও সি মজিবুর নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার সহির উদ্দিন ও সালেহা খাতুন দম্পতির ১১তম সন্তান ২০০৫ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগে এসআই হিসেবে যোগদান করেন। তিনি লালমনিরহাট পুলিশের সফলতার সাথে দায়িত্ব পালনের পর পাবনা সদর, ডিএমপি এয়ারপোর্ট থানা, র‍্যাব হেডকোয়ার্টার, রমনা মডেল থানা, এয়ারপোর্ট থানা, নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা থানায় বিভিন্ন পদে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন ।

No Comments


আরও পড়ুন