অভাবের তাড়নায় শিক্ষিকা আজ মুচি – ডোনেট বাংলাদেশ

অভাবের তাড়নায় শিক্ষিকা আজ মুচি

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১০ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৮:৫৮ 527 ভিউ
হেমন্তকালেই শীত কামড় বসাতে শুরু করেছে। সেই হিম ঠাণ্ডায় রাস্তার বসে দু’পয়সা আয়ের জন্য জুতা পালিশ করছেন এক মধ্যবয়স্ক নারী। তার চোখে চশমা, পরনে বোরকা। অভিজাত চেহারার এই নারীকে কোনোভাবেই এই পেশার সঙ্গে মেলানো যায় না। আসলে তিনি ছিলেন একজন শিক্ষক। অভাবের তাড়নার বাধ্য হয়ে বেছে নিয়েছেন এই পেশা। আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের রাস্তার পাশেই জুতা পালিশ করতে দেখা যাবে সাবেক শিক্ষিকা হাদিয়া আহমাদিকে। চলতি বছরের আগস্টে তালেবান দ্বিতীয় দফায় আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর শিক্ষকতার চাকরি হারান হাদিয়া। এর পর পেটের দায়ে এই পেশা বেছে নিতে তিনি বাধ্য হন বলে শুক্রবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে। পাঁচ সন্তানের মা হাদিয়া

জানান, ঘরে ক্ষুধার্ত সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দিতে এই পেশা বেছে নিতে বাধ্য হন তিনি। এক দশক ধরে শিক্ষকতার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন হাদিয়া। তার স্বামীও একটি ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানে শেফ হিসেবে কাজ করতেন। তার বড় মেয়ে ছিলেন সরকারি একটি সংস্থার ক্লার্ক। মোটামুটি স্বচ্ছল জীবনযাপন করত পরিবারটি। কিন্তু অল্প সময়ের ব্যবধানে সবকিছু বদলে যায়। তালেবান ক্ষমতা দখলের পর মেয়েদের স্কুল বন্ধ করে দেওয়ায় চাকরি হারান হাদিয়া। এরপর তার স্বামী ও মেয়েরও চাকরি চলে যায়। হাদিয়ার এক ছেলে কম্পিউটার সায়েন্সে পড়াশোনা করতেন। পরিবার কেউই উপার্জনক্ষম না থাকায় টিউশন ফি দিতে না পেরে পড়াশোনা ছেড়ে দেন তার ছেলে। হাদিয়া বলেন, এখন আমরা পেটে

খিদে নিয়েই দিন পার করছি। আর এই মুহূর্তে আমার পরিবারের এমন কেউই নেই যারা আমাদের আর্থিক সহায়তা দিতে পারে। তালেবানের ১৯৯৬-২০০১ সালে প্রথম দফায় শাসনামলে নারীদের ঘরের বাইরে কাজ করা নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু এবার হাদিয়ার মতো অনেক নারীই পরিবারের মুখে একটু খাবার তুলে দেওয়ার আশায় রোজগারের জন্য পথে নামতে বাধ্য হচ্ছেন।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
প্যারিস মঞ্চে জেমস‘র সুরে এক টুকরো বাংলাদেশ সিরাজগঞ্জে উল্লাপাড়ায় পুত্রবধূকে ধর্ষন চেষ্টার অভিযোগ শশুরের বিরুদ্ধে রানীশংকৈল কুলিক নদী থেকে এক ব‍্যাক্তির লাস উদ্ধার ঈদ ঘিরে পণ্যের বাড়তি দর সালমানের গোপন তথ্য ফাঁস করলেন শাহরুখ অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা চাইলেন জেলেনস্কি ‌‘পুতিনের জয় বিশ্বের জন্য বিপর্যয়কর হবে’ কোটি কোটি টাকা খরচে নাচ-গান হয়, বন্যার্তরা ত্রাণ পায় না: মির্জা আব্বাস টেলিটক এমডি সাহাবুদ্দিনের লাগামহীন দুর্নীতি ‘ঢাকার চারপাশের ব্রিজ ভেঙে নৌ-চলাচলের উপযোগী করা হবে’ সৌদি আরবে আনন্দ উৎসবে পদ্মা সেতু উদ্বোধন উদযাপন বাড়ছে করোনার প্রকোপ স্বাস্থ্যবিধির ওপর কড়াকড়ি আরোপের সময় এসেছে করোনা চিকিৎসায় প্রস্তুত নয় সব হাসপাতাল অর্ধেক সময়ে গন্তব্যে, উচ্ছ্বসিত যাত্রীরা সময়ের আগেই ডাব্লিউএইচও’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করল বাংলাদেশ সাহিত্য একাডেমির সর্বোচ্চ সম্মান ‘ফেলো’ শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় পদ্মা সেতু দিয়ে ৩ ঘণ্টায় বরিশাল ৫ ঘণ্টায় কুয়াকাটা কিয়েভজুড়ে ফের বিমান হামলার সাইরেন, আরও হামলার আশঙ্কা সিসিটিভিতে ধরা পড়ল সোনার দোকানে সশস্ত্র ডাকারির দৃশ্য এটা রাশিয়ার জন্য একটি উল্লেখযোগ্য অর্জন: যুক্তরাজ্য