কফিশপে হরিণের তাণ্ডব! - ডোনেট বাংলাদেশ

হরিণ মোটামুটি শান্ত স্বভাবের প্রাণী হলেও মাঝেমধ্যে একআধটু দুষ্টুমি করে যে বড় রকমের ঝামেলা বাধাতে পারে, তার প্রমাণ হয়ে গেল সম্প্রতি মিশিগানে। ইউনাইটেড প্রেস ইন্টারন্যাশনালে প্রকাশিত একটি খবরে দেখা যায়, গত শুক্রবার সকালে মিশিগানের একটি কফিশপে অনাহূত অতিথি হয়ে হাজির হয় একটি হরিণ। কফিশপে হরিণ! তোমরা ভাবতে পারো, হরিণ কি আবার কফি খাওয়া শুরু করল নাকি! না, তা তো মোটেই না। হরিণটি তবু ভদ্রভাবে কফিশপটিতে ঢুকলে না হয় ব্যাপারটা চমৎকার হতে পারত, কিন্তু এই হরিণ মশাই যে একটু উগ্র স্বভাবের।

হরিণটি কফিশপের কাচের জানালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে, কাচ ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। হরিণটি সিনেমার ভিলেনের মতো তাণ্ডব চালাতে থাকে শপটির ভেতর, উল্টেপাল্টে দেয় চেয়ার-টেবিল। ফলে সব ঠিকঠাক করার জন্য শপটি বন্ধের নোটিশই ঝুলিয়ে দিতে হলো। হরিণের এমন তাণ্ডব দেখে বিস্মিত না হয়ে পারা যায় না।

সকাল সকাল সামনের জানালা ভেঙে হরিণটি ভেতরে ঢুকে তাণ্ডব চালালে বিগবাই কফি টেক্সাট কর্নার নামে ওই দুর্ভাগা কফিশপ কর্তৃপক্ষ ফেসবুকে একটি পোস্টে লিখে দেয়, ‘পরবর্তী নোটিশের আগপর্যন্ত কফিশপ বন্ধ থাকবে।’

শপটির মালিক ক্যারিয়ার কাজিনস বলেন, ‘সব জায়গায় এমনভাবে রক্ত ছড়িয়ে ছিল যে, এটা একটা খুনের দৃশ্যের মতো লাগছিল।’ তিনি আরো জানান, ভাগ্যিস হরিণটি সকালের বিরতির সময় এসেছিল। তখন ক্রেতারাও চলে যাচ্ছিলেন, কর্মীরাও দোকান থেকে দূরে ছিল।

মালিকের কথা থেকেই বোঝা যায়, ভিড়ের সময় কাণ্ডটি ঘটলে ফলাফল হতে পারত আরো ভয়াবহ। পরে প্রাণী নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তারা হরিণটিকে সেখান থেকে উদ্ধার করতে সমর্থ হন। কাজিনস জানিয়েছেন, ক্ষতি পুষিয়ে নিতে তিনি বিমা দাবি করবেন।

হরিণ মোটামুটি শান্ত স্বভাবের প্রাণী হলেও মাঝেমধ্যে একআধটু দুষ্টুমি করে যে বড় রকমের ঝামেলা বাধাতে পারে, তার প্রমাণ হয়ে গেল সম্প্রতি মিশিগানে। ইউনাইটেড প্রেস ইন্টারন্যাশনালে প্রকাশিত একটি খবরে দেখা যায়, গত শুক্রবার সকালে মিশিগানের একটি কফিশপে অনাহূত অতিথি হয়ে হাজির হয় একটি হরিণ। কফিশপে হরিণ! তোমরা ভাবতে পারো, হরিণ কি আবার কফি খাওয়া শুরু করল নাকি! না, তা তো মোটেই না। হরিণটি তবু ভদ্রভাবে কফিশপটিতে ঢুকলে না হয় ব্যাপারটা চমৎকার হতে পারত, কিন্তু এই হরিণ মশাই যে একটু উগ্র স্বভাবের।

হরিণটি কফিশপের কাচের জানালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে, কাচ ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। হরিণটি সিনেমার ভিলেনের মতো তাণ্ডব চালাতে থাকে শপটির ভেতর, উল্টেপাল্টে দেয় চেয়ার-টেবিল। ফলে সব ঠিকঠাক করার জন্য শপটি বন্ধের নোটিশই ঝুলিয়ে দিতে হলো। হরিণের এমন তাণ্ডব দেখে বিস্মিত না হয়ে পারা যায় না।

সকাল সকাল সামনের জানালা ভেঙে হরিণটি ভেতরে ঢুকে তাণ্ডব চালালে বিগবাই কফি টেক্সাট কর্নার নামে ওই দুর্ভাগা কফিশপ কর্তৃপক্ষ ফেসবুকে একটি পোস্টে লিখে দেয়, ‘পরবর্তী নোটিশের আগপর্যন্ত কফিশপ বন্ধ থাকবে।’

শপটির মালিক ক্যারিয়ার কাজিনস বলেন, ‘সব জায়গায় এমনভাবে রক্ত ছড়িয়ে ছিল যে, এটা একটা খুনের দৃশ্যের মতো লাগছিল।’ তিনি আরো জানান, ভাগ্যিস হরিণটি সকালের বিরতির সময় এসেছিল। তখন ক্রেতারাও চলে যাচ্ছিলেন, কর্মীরাও দোকান থেকে দূরে ছিল।

মালিকের কথা থেকেই বোঝা যায়, ভিড়ের সময় কাণ্ডটি ঘটলে ফলাফল হতে পারত আরো ভয়াবহ। পরে প্রাণী নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তারা হরিণটিকে সেখান থেকে উদ্ধার করতে সমর্থ হন। কাজিনস জানিয়েছেন, ক্ষতি পুষিয়ে নিতে তিনি বিমা দাবি করবেন।

নিউজ ডেক্স
আপডেটঃ ২১ নভেম্বর, ২০২১
১:৫০ অপরাহ্ণ
92 ভিউ

কফিশপে হরিণের তাণ্ডব!

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২১ নভেম্বর, ২০২১ | ১:৫০ 92 ভিউ
হরিণ মোটামুটি শান্ত স্বভাবের প্রাণী হলেও মাঝেমধ্যে একআধটু দুষ্টুমি করে যে বড় রকমের ঝামেলা বাধাতে পারে, তার প্রমাণ হয়ে গেল সম্প্রতি মিশিগানে। ইউনাইটেড প্রেস ইন্টারন্যাশনালে প্রকাশিত একটি খবরে দেখা যায়, গত শুক্রবার সকালে মিশিগানের একটি কফিশপে অনাহূত অতিথি হয়ে হাজির হয় একটি হরিণ। কফিশপে হরিণ! তোমরা ভাবতে পারো, হরিণ কি আবার কফি খাওয়া শুরু করল নাকি! না, তা তো মোটেই না। হরিণটি তবু ভদ্রভাবে কফিশপটিতে ঢুকলে না হয় ব্যাপারটা চমৎকার হতে পারত, কিন্তু এই হরিণ মশাই যে একটু উগ্র স্বভাবের। হরিণটি কফিশপের কাচের জানালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে, কাচ ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। হরিণটি সিনেমার ভিলেনের মতো তাণ্ডব চালাতে থাকে শপটির ভেতর, উল্টেপাল্টে দেয় চেয়ার-টেবিল। ফলে সব ঠিকঠাক করার জন্য শপটি বন্ধের নোটিশই ঝুলিয়ে দিতে হলো। হরিণের এমন তাণ্ডব দেখে বিস্মিত না হয়ে পারা যায় না। সকাল সকাল সামনের জানালা ভেঙে হরিণটি ভেতরে ঢুকে তাণ্ডব চালালে বিগবাই কফি টেক্সাট কর্নার নামে ওই দুর্ভাগা কফিশপ কর্তৃপক্ষ ফেসবুকে একটি পোস্টে লিখে দেয়, ‘পরবর্তী নোটিশের আগপর্যন্ত কফিশপ বন্ধ থাকবে।’ শপটির মালিক ক্যারিয়ার কাজিনস বলেন, ‘সব জায়গায় এমনভাবে রক্ত ছড়িয়ে ছিল যে, এটা একটা খুনের দৃশ্যের মতো লাগছিল।’ তিনি আরো জানান, ভাগ্যিস হরিণটি সকালের বিরতির সময় এসেছিল। তখন ক্রেতারাও চলে যাচ্ছিলেন, কর্মীরাও দোকান থেকে দূরে ছিল। মালিকের কথা থেকেই বোঝা যায়, ভিড়ের সময় কাণ্ডটি ঘটলে ফলাফল হতে পারত আরো ভয়াবহ। পরে প্রাণী নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তারা হরিণটিকে সেখান থেকে উদ্ধার করতে সমর্থ হন। কাজিনস জানিয়েছেন, ক্ষতি পুষিয়ে নিতে তিনি বিমা দাবি করবেন।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ: