করোনায় যেভাবে বদলে গিয়েছিল চিরচেনা ঈদ – ডোনেট বাংলাদেশ

করোনায় যেভাবে বদলে গিয়েছিল চিরচেনা ঈদ

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ৪ মে, ২০২২ | ৫:৫২ 82 ভিউ
সেমাই, জর্দা, পোলাও, মাংসসহ নানা মুখোরোচক খাবার, নতুন পোশাক, ঈদের নামাজ, প্রিয়জনের সঙ্গে কাটানো সুন্দর মুহূর্ত– সব কিছু মিলিয়েই উদযাপিত হয় মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদ। একমাত্র কাছের কারো মৃত্যু ছাড়া মুসলমানদের কাছে ঈদের আনন্দ সহজে ফিকে হয় না। তবে গত দুই বছরে করোনার দাপটে যেন ঈদের চিরচেনা সংজ্ঞা গিয়েছিল পাল্টে। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের কারণে আক্ষরিকভাবেই ঘরবন্দি ঈদ কাটিয়েছেন অনেকেই। করোনাক্রান্ত অনেকেকেই একই বাড়িতে থেকেও একা একা এক ঘরে কাটাতে হয়েছে ঈদ। করোনাকালে ঈদে যারা বাড়ি গিয়েছেন তারাও গণপরিবহণ বন্ধ থাকায় পড়েছেন নানা বিড়ম্বনায়। প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করতে অনেকেই পায়ে হেঁটে ধরেছিলেন বাড়ির পথ। লকডাউনের মধ্যে ফেরার সময়ও পোহাতে হয়েছে বিড়াম্বনা। করোনার কারণে

গত দুই বছর বন্ধ ছিল উন্মুক্ত স্থানে ঈদের জামাত। স্থানীয় ঈদগাঁ থেকে কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের পূর্ব প্রান্তে অবস্থিত বাংলাদেশ তথা উপমহাদেশের সর্ববৃহৎ ও ঐতিহ্যবাহী শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানেও অনুষ্ঠিত হয়নি ঈদের জামাত। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মুসল্লিরা ঈদের নামাজ মসজিদে পড়েছিলেন। সংক্রমণের আশঙ্কায় ঈদের নামাজ আদায় করার পর কোলাকুলি বা হাত মেলানো থেকেও বিরত ছিলেন প্রায় সবাই। গত দুই বছরে চিরচেনা ঈদবাজারের চেহারা ছিল অনেকটাই ভিন্ন। সংক্রমণের ভয়ে ভিড় এড়িয়ে চলেছেন অনেকেই। করোনার বিধিনিষেধের কারণে বিপণিবিতান বন্ধ থাকায় ঈদের নতুন পোশাক কেনাও হয়নি অনেকের। কেউ কেউ অবশ্য সংক্রমণ এড়াতে বেছে নিয়েছিলেন অনলাইনে কেনাকাটা। তবে অনিশ্চিত সময়ের কথা ভেবে অনেকেই ঈদের পোশাকের পেছনে বাড়তি খরচ

করেননি। করেনার কারণে বন্ধ ছিল দেশের সব পর্যটন কেন্দ্র। ঈদকে কেন্দ্র করে জমজমাট ব্যবসা করা পর্যটন খাতে নেমে এসেছিল ধস। তবে আশার কথা করোনার কালো ছায়া সরিয়ে এবার আগের মতো ঈদের আনন্দে মেতে উঠেছে দেশবাসী।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
টেক্সাসে লরি থেকে ৪৬ জনের মরদেহ উদ্ধার ফিলিপাইনে নোবেল জয়ী সাংবাদিক মারিয়া রেসার নিউজ সাইট বন্ধের নির্দেশ ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন বহুদূর বন্যা : বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাসে ফের শঙ্কা তবু থামছে না দামের ঘোড়া সুইডেন এবং ফিনল্যান্ডের ন্যাটোর সদস্যপদ পেতে সমর্থন দেবে তুরস্ক ক্ষোভে ফুঁসছে সারাদেশ শিক্ষক হেনস্তা ও হত্যা আইএমএফ থেকে ঋণ নিতে চাচ্ছে সরকার বুস্টার ডোজে গতি নেই সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী জাতিসংঘের মহাসাগর সম্মেলনে বাংলাদেশ করোনার সামাজিক সংক্রমণের শঙ্কা পুতিনকে জিততে দেবে না জি-৭ রাশিয়ার হামলায় সেভেরোদনেৎস্কের পর এবার পতনের মুখে লিসিচানস্ক সেন্সরে যাচ্ছে ‘পদ্মার বুকে স্বপ্নের সেতু’ ‘কীর্তিনাশার বুকে অমর কীর্তি’ সিলেটে বন্যার্তদের পাশে বিজিবি সদস্যরা স্বামীকে ছক্কা মারলেন পাকিস্তানের তারকা চরমপন্থা ঠেকাতে বাংলাদেশে স্থানীয় বিশেষজ্ঞ নিয়োগ দিয়েছে ফেসবুক যেসব কারণে পেপটিক আলসার হয়, চিকিৎসা কলারোয়া পৌর প্রেসক্লাবের কমিটি গঠনঃ সভাপতি ইমরান, সম্পাদক জুলফিকার নির্বাচিত রাণীশংকৈলে​​​​​​​ মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে কর্মশালা অনুষ্ঠিত