কৃষক দলকে গণসংগঠনে রূপ দিতে ফখরুলের নির্দেশনা


অথর
ডোনেট বাংলাদেশ ডেক্স   রাজনীতি
প্রকাশিত :১২ অক্টোবর ২০২১, ৯:২০ অপরাহ্ণ | পঠিত : 136 বার
কৃষক দলকে গণসংগঠনে রূপ দিতে ফখরুলের নির্দেশনা

জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের নবগঠিত কমিটির নেতাদের দিকনির্দেশনা দিয়েছেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। কৃষক দল নেতাদের প্রতি আশাবাদ ব্যক্ত করে মির্জা ফখরুল বলেন, আপনারা কৃষক দলকে সত্যিকার অর্থেই জনগণের সংগঠনে পরিণত করবেন, গণসংগঠনের পরিণত করবেন। এ দুঃসময়ে কৃষক দলকে সংগঠিত করে জনতার সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে যেন জনগণের সরকার গঠন করতে পারি। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) নসরুল হামিদ মিলনায়তনে কৃষক দলের প্রতিনিধি সম্মেলন হয়। গত ২ সেপ্টেম্বর হাসান জাফির তুহিন ও শহিদুল ইসলাম বাবুলের নেতৃত্বে নবগঠিত কৃষক দলের আংশিক কমিটি গঠনের পর এটি তাদের প্রথম সম্মেলন। সারাদেশ থেকে কৃষক দলের জেলা প্রতিনিধিরা এ সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন আয়োজক কমিটির নেতারা। এ সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর জেলা প্রতিনিধিদের নিয়ে দিনব্যাপী সম্মেলনে জেলা প্রতিনিধিরা বক্তব্য দেন। টানা ২২ বছর পর নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনে গত বছরের ২৭ ফেব্রুয়ারি শামসুজ্জামান দুদুর নেতৃত্বে ১৫৩ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি করা হয়। গত ১২ মার্চ কৃষক দলের চতুর্থ জাতীয় কাউন্সিল হয়। এর পাঁচ মাস পর গত ২ সেপ্টেম্বর হাসান জাফির তুহিন-শহিদুল ইসলাম বাবুলের নেতৃত্বে ৭ সদস্যের কমিটি অনুমোদন করে বিএনপি। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, কৃষক দলের সঙ্গে আমি দীর্ঘদিন জড়িত ছিলাম। এ দলের সাবেক নেতা শামসুজ্জামান দুদুসহ অন্যান্য যারা ছিলেন তাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই যে তারা এ কৃষক দলকে শক্তিশালী সংগঠনে পরিণত করেছিলেন। আপনারা যারা নতুন নেতৃত্বে এসেছেন তাদের কাছে আমাদের প্রত্যাশা অনেক বেশি। একজন কৃষিবিদ আরেকজন ছাত্র নেতা-প্রেসিডেন্ট এবং সেক্রেটারি। আমরা আশা করবো, কৃষক দলকে সত্যিকার অর্থেই জনগণের সংগঠনে পরিণত করবেন, গণসংগঠনের পরিণত করবেন। এ দুঃসময়ে কৃষক দলকে সংগঠিত করে জনতার সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে যেন আমরা জনগণের একটা রাষ্ট্র তৈরি করতে পারি। কৃষকদের উন্নয়নে জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়ার শাসনামলে নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন মির্জা ফখরুল। আজকে কৃষকদের সবচেয়ে করুন অবস্থায় নিয়ে গেছে এ সরকার। একদিকে, ঋণে জর্জরিত, অন্যদিকে ফসলের মূল্য পায় না। কৃষকরা ধানের মূল্য পাচ্ছেন না। পরে মধ্যস্বত্বভোগীরা ধানের দাম বাড়িয়ে বিক্রি করেন। ফলে কী হয়েছে আজকে ৭০ টাকা চালের দাম দাঁড়িয়েছে। অথচ আমাদের কৃষক কিন্তু সেই মূল্য পাচ্ছে না। আজকে প্রতিটি নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে। অতি অল্প সময়ের মধ্যে কৃষক দলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন এবং কেন্দ্রীয় নেতাদের মাঠ পর্যায়ে সফর করার জন্য নবগঠিত আংশিক কমিটির নেতাদের নির্দেশ দেন বিএনপি মহাসচিব। কৃষক দলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুলের সঞ্চালনায় প্রতিনিধি সম্মেলনে কৃষক দলের নবগঠিত কমিটির হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, গৌতম চক্রবর্তী, টিএস আইয়ুব, মোশাররফ হোসেন, শফিকুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।







Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Ok