গর্ভপাত করালে শাস্তি কী? – ডোনেট বাংলাদেশ

গর্ভপাত করালে শাস্তি কী?

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২০ নভেম্বর, ২০২১ | ১১:৫১ 213 ভিউ
বিয়ের ছয় মাস পরেই আমি গর্ভবতী হয়ে পড়ি। কিন্তু আমার স্বামী দুই বছরের আগে সন্তান চান না। হঠাৎ করেই যখন আমি জানতে পারি, আমি এক মাসের অন্তঃসত্ত্বা, তখন স্বামী আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর করে একটি ক্লিনিকে নিয়ে গর্ভপাত করান। আমি কীভাবে আইনগত সহায়তা পেতে পারি? নাবিলা( ছদ্দনাম), দিনাজপুর। আইনজীবীর উত্তর : আপনার ইচ্ছার বিরুদ্ধে যেহেতু আপনার স্বামী গর্ভপাত করানোর চেষ্টা করছেন, তাই আপনার স্বামী দণ্ডবিধির ৩১৩ ধারা অনুসারে অপরাধ করেছেন। দণ্ডবিধির ৩১৩ ধারায় বলা আছে, নারীর সম্মতি ছাড়া গর্ভপাত করানো একটি গুরুতর অপরাধ। এর জন্য যাবজ্জীবন বা ১০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধান আছে। আইনের আশ্রয় কীভাবে নেবেন অবৈধ গর্ভপাত বা অস্বাভাবিক অপরাধের শিকার

হলে আদালতে বা থানায় দুভাবে মামলা করা যায়। আদালতে মামলা দায়ের আদালতে মামলা দায়েরের ক্ষেত্রে প্রথমে একজন আইনজীবীর কাছে যেতে হবে। আইনজীবীকে সব কাগজপত্র দেখানোর পর তাঁর সঙ্গে মামলার খরচের বিষয়ে আলাপ করে নিতে হবে। খরচ আপনার মনমতো হলে সেই আইনজীবীর মাধ্যমে মামলা দায়ের করতে হবে। আইনজীবী বাদীর সব কাগজপত্র পর্যালোচনা করে একটি নালিশি দরখাস্ত তৈরি করবেন। তারপর নিকটস্থ মুখ্য বিচারিক হাকিম বা মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে সিআর বা পিটিশন আকারে মামলা দায়ের করবেন। আদালতের হাকিম বাদীর ফৌজদারি কার্যবিধির ২০০ ধারা অনুযায়ী জবানবন্দি নিয়ে আসামির কাছে সরাসরি সমন বা গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করবেন। এ ছাড়া কোনো কোনো ক্ষেত্রে বিচারক মামলাটি তদন্তের জন্য পুলিশকে নির্দেশ

দিতে পারেন। তদন্ত প্রতিবেদনে সত্যতা পাওয়া গেলে তখন আবার আদালত সরাসরি সমন বা গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করবেন। থানায় মামলা দায়ের অবৈধ গর্ভপাতের ঘটনায় আপনি চাইলে নিকটস্থ থানায় এজাহার হিসেবেও মামলা করতে পারবেন। থানায় মামলাটি গ্রহণ করলে একজন তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করে দেবেন থানার ডিউটি অফিসার। সে তদন্ত কর্মকর্তা আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করতে পারবেন। এ ছাড়া আপনি পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) আইনের মাধ্যমেও প্রতিকার চাইতে পারেন। এ আইনে সুরক্ষা এবং ক্ষতিপূরণ উভয়ের জন্যই নিকটস্থ হাকিম (ম্যাজিস্ট্রেট) আদালতে আবেদন করতে হবে। সেখানে শুনানির ওপর ভিত্তি করে আদালত পারিবারিক সুরক্ষা এবং ক্ষতিপূরণের আদেশ দিতে পারেন। বিবাদী যদি আদালতের সুরক্ষা আদেশ

লঙ্ঘন করেন, তাহলে আপনি আদালতে এ আইনের ৩০ ধারায় পৃথক আবেদন করতে পারেন। আদালত সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে সুরক্ষা আদেশ লঙ্ঘনকারীদের ছয় মাসের কারাদণ্ড বা ১০ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ড দিতে পারেন

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
‘তুফান ঘটক’ আশরাফ সুপ্ত রাশিয়াকে ড্রোন দেওয়ার দাবি আবারও প্রত্যাখ্যান করল ইরান চার অঞ্চল অন্তর্ভুক্তির বিল রাশিয়ার পার্লামেন্টে অনুমোদন রাশিয়াকে ড্রোন দেওয়ার দাবি আবারও প্রত্যাখ্যান করল ইরান মোগল আমলে নির্মিত সাত গম্বুজ মসজিদ পরিবেশ সুরক্ষার দায়িত্ব সবার র‍্যাব সংস্কারের প্রশ্ন: কিছু কথা পরিশ্রমের সময় বুকে ব্যথা, কী করবেন? সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে সেতুর রেলিংয়ে মাইক্রোবাসের ধাক্কা,নিহত ৩ সতর্কবার্তা ৬ বছর আগেই ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট হবেন ‘রানঅফ’ ভোটে, এটি কেমন পদ্ধতি? রুশ সেনাদের স্থাপনার তালিকা যুক্তরাষ্ট্রকে দিতে চায় ইউক্রেন পারমাণবিক কেন্দ্রের প্রধানকে ছেড়ে দিয়েছে রাশিয়া নপির শাসনামলের ১০০ দিনের আমলনামা তুলে ধরলেন জয় একটাই দাবি এই সরকারকে বিদায় করতে হবে: অলি বাংলাদেশের গণতন্ত্র নিয়ে আপনাদের এত মাথাব্যথা কেন: ওবায়দুল কাদের সুইপারকে হোটেলে নাস্তা খেতে না দেওয়ায় মানববন্ধন ’৭১-এর গণহত্যার স্বীকৃতির দাবিতে কানাডায় সমাবেশ আবুধাবিতে নানা আয়োজনে চলছে শারদীয় দুর্গাপূজা ব্যবসার পরিবেশ সহজীকরণ: দুর্নীতি ও আমলাতান্ত্রিক জটিলতা দূর করা জরুরি