জানালার ফাঁক দিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর পোশাক বদলের ভিডিওধারণ - ডোনেট বাংলাদেশ

পর্নোগ্রাফি মামলায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে দোহার থানার পুলিশ। তারা হলেন মো. আব্দুস সালাম (৩৫) ও মাসুদ রানা (৩২)। তারা দোহারের লটাখোলা বিলেরপাড় এলাকায় গোপনে গৃহবধূর পোশাক বদলের ভিডিওধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল।

পুলিশ জানায়, লটাখোলা বিলেরপাড় এলাকায় গত ২৭ মে রাতে এক দুবাই প্রবাসীর স্ত্রী (নাম গোপন রাখা হলো) ঘরে পোশাক পরিবর্তন করার সময় জানালার ফাঁক দিয়ে ভিডিওধারণ করে একই এলাকার সালাম, মাসুদ রানা, কাউছারসহ আরও দু-তিনজন। এরপর ২৯ মে বিকেলে তারা ওই গৃহবধূর বাসায় গিয়ে নগ্ন ভিডিও ও ছবি প্রদর্শন করে। এসময় তারা ইন্টারনেটের মাধ্যমে ভাইরাল করে দেবে বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। সম্ভ্রম বাঁচাতে ওই গৃহবধূ ঘরে থাকা ২০ হাজার টাকা তাদের দেয়।

উপায় না পেয়ে তিনি বিষয়টি দোহার থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দু-তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। এরপর দোহার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন গৃহবধূকে চাঁদা দেয়ার জন্য রাজি হতে বলে ফাঁদ পাতেন। সেই ফাঁদে ধরা খায় আসামিরা।

গত ১৪ জুন সন্ধ্যা ৭টার দিকে পুনরায় তারা ওই গৃহবধূর বাড়িতে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করলে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ দুজনকে হাতে নাতে ধরে।

এ বিষয়ে সাজ্জাদ হোসেন সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তাদের কাছ থেকে ওই নারীর ভিডিওসহ মোবাইল উদ্ধার করে সোমবার জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

পর্নোগ্রাফি মামলায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে দোহার থানার পুলিশ। তারা হলেন মো. আব্দুস সালাম (৩৫) ও মাসুদ রানা (৩২)। তারা দোহারের লটাখোলা বিলেরপাড় এলাকায় গোপনে গৃহবধূর পোশাক বদলের ভিডিওধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল।

পুলিশ জানায়, লটাখোলা বিলেরপাড় এলাকায় গত ২৭ মে রাতে এক দুবাই প্রবাসীর স্ত্রী (নাম গোপন রাখা হলো) ঘরে পোশাক পরিবর্তন করার সময় জানালার ফাঁক দিয়ে ভিডিওধারণ করে একই এলাকার সালাম, মাসুদ রানা, কাউছারসহ আরও দু-তিনজন। এরপর ২৯ মে বিকেলে তারা ওই গৃহবধূর বাসায় গিয়ে নগ্ন ভিডিও ও ছবি প্রদর্শন করে। এসময় তারা ইন্টারনেটের মাধ্যমে ভাইরাল করে দেবে বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। সম্ভ্রম বাঁচাতে ওই গৃহবধূ ঘরে থাকা ২০ হাজার টাকা তাদের দেয়।

উপায় না পেয়ে তিনি বিষয়টি দোহার থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দু-তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। এরপর দোহার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন গৃহবধূকে চাঁদা দেয়ার জন্য রাজি হতে বলে ফাঁদ পাতেন। সেই ফাঁদে ধরা খায় আসামিরা।

গত ১৪ জুন সন্ধ্যা ৭টার দিকে পুনরায় তারা ওই গৃহবধূর বাড়িতে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করলে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ দুজনকে হাতে নাতে ধরে।

এ বিষয়ে সাজ্জাদ হোসেন সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তাদের কাছ থেকে ওই নারীর ভিডিওসহ মোবাইল উদ্ধার করে সোমবার জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

জানালার ফাঁক দিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীর পোশাক বদলের ভিডিওধারণ

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৯ নভেম্বর, ২০২১ | ২:৫৪ 48 ভিউ
পর্নোগ্রাফি মামলায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে দোহার থানার পুলিশ। তারা হলেন মো. আব্দুস সালাম (৩৫) ও মাসুদ রানা (৩২)। তারা দোহারের লটাখোলা বিলেরপাড় এলাকায় গোপনে গৃহবধূর পোশাক বদলের ভিডিওধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল। পুলিশ জানায়, লটাখোলা বিলেরপাড় এলাকায় গত ২৭ মে রাতে এক দুবাই প্রবাসীর স্ত্রী (নাম গোপন রাখা হলো) ঘরে পোশাক পরিবর্তন করার সময় জানালার ফাঁক দিয়ে ভিডিওধারণ করে একই এলাকার সালাম, মাসুদ রানা, কাউছারসহ আরও দু-তিনজন। এরপর ২৯ মে বিকেলে তারা ওই গৃহবধূর বাসায় গিয়ে নগ্ন ভিডিও ও ছবি প্রদর্শন করে। এসময় তারা ইন্টারনেটের মাধ্যমে ভাইরাল করে দেবে বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। সম্ভ্রম বাঁচাতে ওই গৃহবধূ ঘরে থাকা ২০ হাজার টাকা তাদের দেয়। উপায় না পেয়ে তিনি বিষয়টি দোহার থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত দু-তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। এরপর দোহার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ হোসেন গৃহবধূকে চাঁদা দেয়ার জন্য রাজি হতে বলে ফাঁদ পাতেন। সেই ফাঁদে ধরা খায় আসামিরা। গত ১৪ জুন সন্ধ্যা ৭টার দিকে পুনরায় তারা ওই গৃহবধূর বাড়িতে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করলে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ দুজনকে হাতে নাতে ধরে। এ বিষয়ে সাজ্জাদ হোসেন সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তাদের কাছ থেকে ওই নারীর ভিডিওসহ মোবাইল উদ্ধার করে সোমবার জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ: