দেশে এক বছরে ‘বিপজ্জনক’ মিনিপ্যাক বর্জ্যই ২ লাখ টন – ডোনেট বাংলাদেশ

দেশে এক বছরে ‘বিপজ্জনক’ মিনিপ্যাক বর্জ্যই ২ লাখ টন

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২ জুলাই, ২০২২ | ১০:৪৬ 112 ভিউ
সদ্যবিদায়ী অর্থবছরে দেশে ১০ লাখ ৬০ হাজার টন একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক বর্জ্য উৎপাদন হয়েছে বলে তথ্য উঠে এসেছে এক গবেষণায়। এসব বর্জ্যের মধ্যে বিভিন্ন পণ্যসামগ্রীর মিনিপ্যাকই এক লাখ ৯২ হাজার ১০৪ টন। শনিবার গবেষণা সংস্থা এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন (এসডো) লালমাটিয়ায় নিজেদের কার্যালয়ে ‘প্লাস্টিক স্যাশে: স্মল প্যাকেট উইথ হিউজ এনভায়রনমেন্ট ডেস্ট্রাকশন’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এই তথ্য তুলে ধরে। এসডোর গবেষণা বলছে, সদ্যবিদায়ী অর্থবছরে শুধু খাবারের (চিপস, টমেটো সস, জুস, গুঁড়ো দুধ, কফি ইত্যাদি) মিনিপ্যাকেই ৪০ শতাংশ ক্ষুদ্র প্লাস্টিক বর্জ্য উৎপাদন হয়েছে। প্রসাধনীর (শ্যাম্পু, কন্ডিশনার, টুথপেস্ট ও মাউথ ফ্রেশনার) ক্ষেত্রে এই হার ২৪ শতাংশ, ওষুধের (স্যালাইনের প্যাক, মেডিসিন স্ট্রিপ) ক্ষেত্রে ৮ শতাংশ

এবং মশলা, বেভারেজ ও গৃহস্থালি পরিচ্ছন্ন সামগ্রীর ক্ষেত্রে ৭ শতাংশ উৎপাদন হয়েছে। বাকি ৭ শতাংশ বর্জ্য অন্যান্য মিনিপ্যাকে উৎপাদন হয়। বৈঠকে এসডোর সভাপতি ও সাবেক সচিব সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ বলেন, ‘প্লাস্টিকের মিনি প্যাকেট পরিবেশের জন্য বিপজ্জনক। প্লাস্টিকের মিনি প্যাকেট আকারে ছোট হলেও পরিবেশে এর প্রভাব বিশাল।’ সরকারের কাছে মিনিপ্যাক ব্যবহারের ক্ষেত্রে কঠোর বিধিনিষেধ কার্যকর করার অনুরোধ জানান তিনি। ক্ষুদ্র প্লাস্টিক বর্জ্যের ভয়াবহতা তুলে ধরেন এসডোর মহাসচিব শাহরিয়ার হোসেন। তিনি বলেন, ‘একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক দূষণ রোধে আমাদের সেই সময়ে ফিরে যেতে হবে যখন বাজারে স্যাশে (মিনিপ্যাক) ছিল না এবং মানুষ কেনাকাটার জন্য রিফিল সিস্টেম ব্যবহার করত। …আমাদের একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক পণ্যের কাঁচামাল, উৎপাদন ও

বিপণনের ওপর অধিক শুল্ক আরোপ করতে হবে।’ বৈঠকে জানানো হয়, শুধু কক্সবাজারেই এক বছরে ৬৯ হাজার ৮৪১ টন (১৩৯৬৮ টন মিনিপ্যাক) একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক বর্জ্য পাওয়া গেছে। আর কুতুপালং এলাকায় মিলেছে ৯ হাজার ৭৩ টন (১৬৩৩ টন মিনিপ্যাক) টন।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
কুষ্টিয়ায় প্রেমিকাকে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ, প্রেমিক গ্রেফতার মাগুরায় বীর মুক্তিযোদ্ধা সুরত আলীর রাষ্ট্রীয় মর্জাদায় দাফন মাগুরায় কওমি মাদ্রাসার ছাত্রীকে বেধড়ক পিটিয়ে মাগুরায় সমবায় বিভাগের উন্নত জাতের গাভী পালনের চেক বিতরণ কেন্দুয়ায় মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে বাড়িঘরে হামলা-লুটপাটঃ ৮টি গরু ও ৪টি ছাগল উদ্ধার যতদিন শেখ হাসিনা ক্ষমতায় ততদিন নিরাপদ কৃষকরা দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী ভারতে ইলিশ রফতানির মেয়াদ বাড়ল ইডেনের ছাত্রলীগ নেত্রীদের যৌন শোষণের বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ এখন আর আকর্ষণীয় নয়: গভর্নর বাংলাদেশে কী ধরনের নির্বাচন হবে তা নির্ধারণ করবে জনগণ বনানীতে চিরনিদ্রায় শায়িবনানীতে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন তোয়াব খানত হলেন তোয়াব খান হাজারো ভক্তদের উপস্থিতিতে মণ্ডপে মণ্ডপে কুমারী পূজা লিটারে সয়াবিন তেলের দাম কমেছে ১৪ টাকা রপ্তানি আয়-রেমিট্যান্স প্রবাহ কমেছে ২৫১ জনের কমিটির অধিকাংশই নিষ্ক্রিয় নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা শুরু আজ ফের তুমব্রু সীমান্তে মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা কিশোর নিহত মাদ্রিদে বাংলাদেশিদের পরিচালনায় আরও একটি মসজিদ জীবন কাঁপানো দুর্ভোগের শেষ কোথায়