প্রকল্পে পরামর্শকের বোঝা ঋণের টাকার অপচয় বন্ধ হওয়া প্রয়োজন – ডোনেট বাংলাদেশ

প্রকল্পে পরামর্শকের বোঝা ঋণের টাকার অপচয় বন্ধ হওয়া প্রয়োজন

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ৫:০২ 25 ভিউ
বৈশ্বিক অর্থনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে সরকার যখন কৃচ্ছ্রসাধনের অংশ হিসাবে উন্নয়ন প্রকল্পের ব্যয় কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তখন জানা গেল একটি প্রকল্পে পরামর্শক খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪৩ কোটি টাকা। বলার অপেক্ষা রাখে না, ২ হাজার ৬৬৬ কোটি টাকার ‘উপকূলীয় শহর জলবায়ুসহিষ্ণু প্রকল্পে’ পরামর্শকের পেছনে এমন ব্যয়ের প্রস্তাব সরকারের কৃচ্ছ্রসাধন নীতির পরিপন্থি। শুধু পরামর্শক খাতে ব্যয় নয়, প্রস্তাবিত প্রকল্পের আওতায় শরীয়তপুর জেলার জাজিরা ও ভেদরগঞ্জ পৌরসভায় দুটি সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণের প্রস্তাব করা হয়েছে বলে জানা গেছে; অথচ এ দুটি পৌরসভায় কখনো সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস হয় না। উল্লেখ্য, এ প্রকল্পের অর্থের সিংহভাগই বহন করা হবে বিদেশি ঋণের টাকায়। এর মধ্যে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের ঋণই ২

হাজার ১১৫ কোটি টাকা। বাকি অর্থ সরকারি তহবিল ও অনুদানের। ঋণের টাকার এমন অপব্যয় কোনোভাবেই কাম্য নয়। স্বভাবতই পরিকল্পনা কমিশন প্রকল্পটিতে পরামর্শক খাতে এ ব্যয়ের যৌক্তিকতা ও বাস্তবতা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে। বৈদেশিক ঋণের প্রকল্পে পরামর্শক নিয়োগের লাগাম টানা যাচ্ছে না কিছুতেই। উন্নয়ন সহযোগীরা ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে নানা শর্ত জুড়ে দেয়, এ অভিযোগ নতুন নয়। তবে ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সাবেক সদস্য ও বর্তমান পরিকল্পনা সচিব মামুন-আল-রশীদ জানিয়েছেন, ‘পরামর্শক নিয়োগ কোনো চুক্তির শর্ত নয়। তবে অনেক ক্ষেত্রেই যারা ঋণ বা অনুদান দেয়, তাদের পক্ষ থেকে পরামর্শকের বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়। তাদের আলোচনার মধ্যেও পরামর্শকের বিষয়টি থাকে। তবে আমাদের দেখতে হবে প্রকল্প বাস্তবায়নে সত্যিই এত পরামর্শকের

প্রয়োজন আছে কি না।’ আমরাও মনে করি, অপ্রয়োজনে বিদেশ থেকে পরামর্শক আনার প্রবণতা পরিহার করা উচিত। দেশেই বিভিন্ন ক্ষেত্রে দক্ষ পরামর্শক তৈরি করা গেলে বিপুল অর্থব্যয়ে বিদেশ থেকে পরামর্শক আনার প্রয়োজন হতো না। আর উন্নয়ন সহযোগীরা চাইলেই পরামর্শক নেওয়া উচিত নয়, যে কথা খোদ পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীও বলেছেন। বর্তমান বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে সংকট মোকাবিলায় সব ক্ষেত্রেই সাশ্রয়ী হওয়া প্রয়োজন। বিশেষ করে যেসব প্রকল্পে বিদেশ থেকে পণ্য আমদানির প্রয়োজন হয়, সেগুলো বাস্তবায়নে এ মুহূর্তে ব্যয়সাশ্রয়ী পদক্ষেপ নেওয়াই সমীচীন। মনে রাখা দরকার, অনিয়ম-দুর্নীতি ও অপচয়ের কারণে সরকারের বিভিন্ন খাতে ব্যয় বেড়ে যায়। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
চিরিরবন্দর দুই কেজি গাঁজা ও মাদক বিক্রির টাকাসহ গ্রেফতার দুই সম্প্রতি কুড়িয়ে পাওয়া সেই টাকার মালিক কে খোঁজে না পেয়ে অন্ধ হাফেজের চিকিৎসার জন‍্য দিলেন সৌরভ।। কলারোয়ায় ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে দায়িত্বপ্রাপ্তদের সাথে মতবিনিময় টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী গণসংযোগ চালাচ্ছেন আলহাজ্ব শেখ আমজাদ হোসেন ইউপি সদস্য ওমর ফারুককের হত্যা মামলায় এক যুবককে মৃত্যুদণ্ড সমাবেশ শুরুর আগেই হাজারীবাগে আ.লীগ-বিএনপির সংঘর্ষ মামলায় আসামি মৃত ব্যক্তি, ছাত্রলীগকর্মীও কুমিল্লা পিবিআই কার্যালয় থেকে অস্ত্র-গুলিসহ মালামাল চুরি ইউক্রেন ইস্যুতে ঢাকার সহযোগিতা চায় টোকিও এবার কানাডা যাচ্ছেন মুহিবুল্লাহর মাসহ ১৪ স্বজন পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে যাবে না আওয়ামী লীগ সংস্কৃতিজনদের ভালোবাসায় সিক্ত সাফজয়ী নারী ফুটবলাররা মাদক মামলায় পুলিশ-র‌্যাবের সদস্যও কারাগারে আছেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সচিবদের জন্য সতর্কবার্তা স্বাক্ষর যাঁর দায়িত্ব তাঁর তাল মেলাতে পারছে না দেশের পর্যটন খাত ওডেসায় সামরিক স্থাপনায় আঘাত হানল রাশিয়ার ড্রোন হাজারীবাগে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ রাশিয়ার স্কুলে ভয়াবহ হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩ বিপিএলে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক কত, জানাল বিসিবি ‘বড় ভাইদের আশ্বাসে’ অনশন বাতিল করে ক্যাম্পাসে ফিরলেন ইডেনের সেই নেত্রীরা