বাহাত্তরের সংবিধানে ফিরে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে – ডোনেট বাংলাদেশ

বাহাত্তরের সংবিধানে ফিরে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে

লেখক: গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইনমন্ত্রী
আপডেটঃ ৫ নভেম্বর, ২০২২ | ৮:৪৩ 42 ভিউ
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের এ উপমহাদেশে সবচেয়ে কম সময়ের মধ্যে একটি সংবিধান উপহার দিয়েছেন। এ সংবিধান প্রণয়নে ১৯৭২ সালের ২৩ মার্চ গণপরিষদ গঠন করা হয়েছিল। এতে ১৯৭০ সালের ডিসেম্বর এবং ১৯৭১ সালের জানুয়ারিতে নির্বাচিত প্রাদেশিক ও জাতীয় পরিষদের সদস্যরা অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। ফলে এটি সম্পূর্ণ আইনি প্রক্রিয়ায় গঠন করা হয় অর্থাৎ জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের নিয়ে বঙ্গবন্ধু সংবিধান প্রণয়ন করেছিলেন। এটি ১৯৭২ সালে সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন করা হয়। সেদিন বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর আমরা বিজয় লাভ করেছি। এই বিজয়ের জন্য যাঁরা শহীদ হয়েছেন তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে ১৬ ডিসেম্বর সংবিধান কার্যকর করা উচিত। তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১৯৭২ সালের

১৬ ডিসেম্বর থেকেই সংবিধান কার্যকর হয়েছে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের হত্যা করার মাধ্যমে এই সংবিধানকে হত্যা করার চেষ্টা হয়েছে। বস্তুত, এরপর এই দেশের স্বাধীনতাকেও হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে। আমরা দেখেছি, ১৯৭৫ সালের ২৬ সেপ্টেম্বরের কালো আইনটি (ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ) প্রথমে অধ্যাদেশ আকারে এলেও পরে জাতীয় সংসদেও পাস করা হয়। এই অবস্থায় দেশ চলেছে ২১ বছর। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশটি বাতিল করেন। এরপর সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে ১৯৭২ সালের মূল সংবিধান বহুলাংশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। কিছু কিছু বিষয় অবশ্য এখনও ফিরিয়ে আনা যায়নি। সেটি আমরা ষোড়শ সংশোধনীর মাধ্যমে ফিরিয়ে আনতে চাচ্ছি (বিচারপতি

অপসারণ সংক্রান্ত আপিল বিভাগের রায় রিভিউ আবেদন বর্তমানে শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে)। আশা করি, আমরা সেখানেও ফিরে যেতে পারব। তবে আরও কিছু বিষয় আছে যেখানে হয়তো বাস্তবতার নিরিখে ফিরে যাওয়া হয়নি। যাই হোক, বাহাত্তরের মূল সংবিধানে ফিরে যাওয়ার সম্ভাবনা এখনও আছে। এই সংবিধান কার্যকরের ৫০ বছর হয়েছে। সংবিধান প্রণয়নের দিবসকে আমাদের সম্মান করা উচিত। এই দিনটিকে সম্মান করলে জনগণের আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধা বাড়বে। বঙ্গবন্ধুর অভিজ্ঞতার আলোকে প্রণীত সংবিধানের উল্লেখযোগ্য দিক সম্পর্কে জনগণকে, বিশেষ করে আমাদের নতুন প্রজন্মকে জানাতে হবে। এতে তারা অনুপ্রাণিত হবে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
নোয়াখালীতে ইটভাটা আইন সংশোধনের দাবিতে মানববন্ধন নোয়াখালীতে গৃহবধূ হত্যা:স্বামীর মৃত্যুদণ্ড বাগমারায় জেলা কৃষক লীগের সম্মেলন স্থল পরিদর্শন চাতরার দোলায় দিনব্যাপী মাছ ধরা বাওয়া উৎসবে মানুষের ঢল নাটোরে ইটভাটা মলিকদের মানববন্ধন বেনাপোলে ৯৪ লাখ টাকার স্বর্ণ উদ্ধার বেনাপোলে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে চটপটি বিক্রেতা গ্রেফতার সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে জেলা প্রশাসক ড.ফারুক আহাম্মদকে বিদায়ী সংবর্ধনা সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় আগুনে পুড়লো ৪ দোকান, ৩৫ লাখ টাকা ক্ষতি মাগুরা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাথে মাগুরা পুলিশ সুপারের মতবিনিময় ধানক্ষেত থেকে মুয়াজ্জিনের হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার আপনারা ধরছেন চুনোপুঁটি, রাঘববোয়ালদের ধরবে কে: দুদককে হাইকোর্ট জ্যাকুলিনের জবানবন্দি ‘ফখরুল সাহেব, মানুষকে ধোঁকা দিয়ে বোকা বানাতে পারবেন না’ ইউক্রেন বিশ্বের খাদ্য নিরাপত্তা দিয়ে যাবে: জেলেনস্কি যে কারণে হচ্ছে না পদ্মা-মেঘনা বিভাগ বিএনপির সঙ্গে খেলা হবে: ওবায়দুল কাদের এসএসসির ফল প্রকাশ কাল, জানা যাবে যেভাবে প্রকাশ্যে ঘুস নেওয়ার ভিডিও ভাইরাল, সেই ভূমি কর্মকর্তা বরখাস্ত ফুটপাতে বসে কালাই রুটি খেলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী