মধুখালীতে পিয়াজের চারা রোপণে ব্যাস্ত চাষী - ডোনেট বাংলাদেশ

মধুখালীতে জমে উঠেছে পিয়াজের চারার হাট। চারা রোপনের মৌসুমকে কেন্দ্র করে প্রতি বছরই হাট বসে মধুখালীতে। পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের মরিচ বাজারে এ হাট বসে। সপ্তাহের সোমবার ও শুক্রবার এ দুদিনে সকাল থেকেই ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে হাট। বিভিন্ন প্রজাতির বিদেশি ও দেশি জাতের চারা বিক্রি হয় এ হাটে। এ বছর মধুখালীর বিভিন্ন হাটে কৃষকেরা পিয়াজের চারা সংগ্রহ করতে ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে। উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় গত মৌসুমের তুলনায় চলতি বছর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর পিয়াজের চারা রোপনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়ার আশা করলেও অতিবৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধার সৃষ্টি হওয়ায় পূর্বে রোপনকৃত চারা নষ্ট হয়ে যায়।উপজেলার সবচেয়ে বড়

মধুখালী বাজার হাটে সোমবার চারা সংগ্রহ করতে ভীর পড়ে গেছে পিয়াজ চাষীদের । দেশের মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ী জেলার ঝিটকা, বস্তাবাজার,কসাইপুর সহ বিভিন্ন স্থান থেকে মিনি পিকআপে করে চারা আসে মধুখালীর হাটে। এখান থেকে সেগুলো আবার বিভিন্ন জেলায় পৌচ্ছে যায় এসব চারা। প্রথম দিকে খুচরা পর্যায়ে প্রতি মন চারার দাম ৩ হাজার বিক্রি হলেও এখন ৮‘শ টাকা থেকে ১৫’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত বছরের তুলনায় এবার চারার দাম কিছুটা বেশী। হাটে চারার আমদানীও ব্যাপক দেখা যায়। চারা রোপন করতে পিয়াজ চাষিরা ব্যস্ত । সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত শত শত পিয়াজ চাষী হাটে চারা সংগ্রহ করতে হাজির হচ্ছেন। মধুখালী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আলিভির

রহমান জানান ১০ হেক্টর পর্যন্ত চারা রোপন করেছে চাষীরা। সামনে আরো একমাস চাষীরা চারা রোপন করবেন। তাতে এবার লক্ষ্যমাত্র ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।এ বছর পেয়াজের কদম বীজ ৯৫ হেক্টর ও ১৮০ হেক্টর বীজতলা করা হয়েছিল।

মধুখালীতে জমে উঠেছে পিয়াজের চারার হাট। চারা রোপনের মৌসুমকে কেন্দ্র করে প্রতি বছরই হাট বসে মধুখালীতে। পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের মরিচ বাজারে এ হাট বসে। সপ্তাহের সোমবার ও শুক্রবার এ দুদিনে সকাল থেকেই ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে হাট। বিভিন্ন প্রজাতির বিদেশি ও দেশি জাতের চারা বিক্রি হয় এ হাটে। এ বছর মধুখালীর বিভিন্ন হাটে কৃষকেরা পিয়াজের চারা সংগ্রহ করতে ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে। উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় গত মৌসুমের তুলনায় চলতি বছর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর পিয়াজের চারা রোপনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়ার আশা করলেও অতিবৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধার সৃষ্টি হওয়ায় পূর্বে রোপনকৃত চারা নষ্ট হয়ে যায়।উপজেলার সবচেয়ে বড়

মধুখালী বাজার হাটে সোমবার চারা সংগ্রহ করতে ভীর পড়ে গেছে পিয়াজ চাষীদের । দেশের মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ী জেলার ঝিটকা, বস্তাবাজার,কসাইপুর সহ বিভিন্ন স্থান থেকে মিনি পিকআপে করে চারা আসে মধুখালীর হাটে। এখান থেকে সেগুলো আবার বিভিন্ন জেলায় পৌচ্ছে যায় এসব চারা। প্রথম দিকে খুচরা পর্যায়ে প্রতি মন চারার দাম ৩ হাজার বিক্রি হলেও এখন ৮‘শ টাকা থেকে ১৫’শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত বছরের তুলনায় এবার চারার দাম কিছুটা বেশী। হাটে চারার আমদানীও ব্যাপক দেখা যায়। চারা রোপন করতে পিয়াজ চাষিরা ব্যস্ত । সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত শত শত পিয়াজ চাষী হাটে চারা সংগ্রহ করতে হাজির হচ্ছেন। মধুখালী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আলিভির

রহমান জানান ১০ হেক্টর পর্যন্ত চারা রোপন করেছে চাষীরা। সামনে আরো একমাস চাষীরা চারা রোপন করবেন। তাতে এবার লক্ষ্যমাত্র ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।এ বছর পেয়াজের কদম বীজ ৯৫ হেক্টর ও ১৮০ হেক্টর বীজতলা করা হয়েছিল।

মধুখালীতে পিয়াজের চারা রোপণে ব্যাস্ত চাষী

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১১ জানুয়ারি, ২০২২ | ৫:৪০ 70 ভিউ
মধুখালীতে জমে উঠেছে পিয়াজের চারার হাট। চারা রোপনের মৌসুমকে কেন্দ্র করে প্রতি বছরই হাট বসে মধুখালীতে। পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের মরিচ বাজারে এ হাট বসে। সপ্তাহের সোমবার ও শুক্রবার এ দুদিনে সকাল থেকেই ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে হাট। বিভিন্ন প্রজাতির বিদেশি ও দেশি জাতের চারা বিক্রি হয় এ হাটে। এ বছর মধুখালীর বিভিন্ন হাটে কৃষকেরা পিয়াজের চারা সংগ্রহ করতে ব্যস্ত দেখা যাচ্ছে। উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় গত মৌসুমের তুলনায় চলতি বছর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর পিয়াজের চারা রোপনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাওয়ার আশা করলেও অতিবৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধার সৃষ্টি হওয়ায় পূর্বে রোপনকৃত চারা নষ্ট হয়ে যায়।উপজেলার সবচেয়ে বড়

মধুখালী বাজার হাটে সোমবার চারা সংগ্রহ করতে ভীর পড়ে গেছে পিয়াজ চাষীদের । দেশের মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ী জেলার ঝিটকা, বস্তাবাজার,কসাইপুর সহ বিভিন্ন স্থান থেকে মিনি পিকআপে করে চারা আসে মধুখালীর হাটে। এখান থেকে সেগুলো আবার বিভিন্ন জেলায় পৌচ্ছে যায় এসব চারা। প্রথম দিকে খুচরা পর্যায়ে প্রতি মন চারার দাম ৩ হাজার বিক্রি হলেও এখন ৮‘শ টাকা থেকে ১৫'শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত বছরের তুলনায় এবার চারার দাম কিছুটা বেশী। হাটে চারার আমদানীও ব্যাপক দেখা যায়। চারা রোপন করতে পিয়াজ চাষিরা ব্যস্ত । সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত শত শত পিয়াজ চাষী হাটে চারা সংগ্রহ করতে হাজির হচ্ছেন। মধুখালী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আলিভির

রহমান জানান ১০ হেক্টর পর্যন্ত চারা রোপন করেছে চাষীরা। সামনে আরো একমাস চাষীরা চারা রোপন করবেন। তাতে এবার লক্ষ্যমাত্র ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে।এ বছর পেয়াজের কদম বীজ ৯৫ হেক্টর ও ১৮০ হেক্টর বীজতলা করা হয়েছিল।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
আফগানিস্তানে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ২৬ শাবিপ্রবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাস মন্ত্রী-এমপির সই জালিয়াতি করে যেভাবে প্রতারণা করত ওরা ফেসবুকে সামাজিক নাকি অসামাজিক যোগাযোগ! অভিনেত্রী শিমুর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার এবার নারায়ণগঞ্জ মহানগর শ্রমিক লীগের কমিটি বিলুপ্ত জন্মনিয়ন্ত্রণে কনডম কেন জনপ্রিয়? ধরাশায়ী ৯৫ শতাংশ কেন্দ্রে জামাইয়ের পাতে ৩৬৫ পদের খাবার! রহস্যজনক কারণে জমা পড়েনি পিসিআর মেটাভার্সে ‘প্রথম’ বিয়ে দেখছে ভারত ডিসি সম্মেলন শুরু আজ তারাকান্দায় শীতবস্ত্র বিতরণ Police action at SUST:CU students condemn শ্যামনগরে গাঁজাও ইয়াবা উদ্ধার আটক-৬ অবৈধভাবে পাহাড় কাঁটার দায়ে রামগড়ে এক ব‍্যাক্তিকে ৬০হাজার টাকা জরিমানা রাজশাহী চারঘাট উপজেলার কাটাখালী থানাধীন মিরকামারিতে চলছে অবৈধ ভাবে পুকুর খনন হাটগাঙ্গোপাড়া সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহ্ফুজা ও শাহনাজ পারভীনের বিদায় সংবর্ধনা সাতক্ষীরায় গাঁজাসহ আটক-২ বাগমারায় চলতি মৌসুমে পেঁয়াজ চাষে ব্যস্ত কৃষকরা