রাশিয়ার তেল কেনার সিদ্ধান্ত যে বার্তা দেয় – ডোনেট বাংলাদেশ

রাশিয়ার তেল কেনার সিদ্ধান্ত যে বার্তা দেয়

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২১ আগস্ট, ২০২২ | ১০:১১ 42 ভিউ
অবশেষে বাংলাদেশ সরকার রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল কিনতে যাচ্ছে। ১৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রতি ব্যারেল ডিজেল ৫৯ ডলারে চট্টগ্রাম বন্দর পর্যন্ত পৌঁছে দেবে বলে প্রস্তাব দিয়েছে রাশিয়া। বিপিসি বা বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন বর্তমানে প্রস্তাবটি নিয়ে কাজ করছে। আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি ব্যারেল পরিশোধিত ডিজেল বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ ডলারে। এর সঙ্গে আছে পরিবহন খরচ। অতএব রাশিয়ার প্রস্তাব বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত লোভনীয় বললে ভুল বলা হবে না। এর আগে মঙ্গলবার একনেক বা জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের সভা শেষে এক ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভায় রাশিয়ার জ্বালানি তেল কেনার বিষয়ে প্রক্রিয়া শুরু করতে বলেছেন। মন্ত্রীর কথা থেকে আরও বোঝা যায়, প্রধানমন্ত্রী

রাশিয়ার তেল কেনার ব্যাপারে বেশ সিরিয়াস। তিনি নাকি স্পষ্ট করে বলেছেন, রাশিয়ার তেল ভারত কিনতে পারলে আমরা কেন পারব না? মূলত প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা পেয়েই বিপিসি বা জ্বালানি বিভাগ রাশিয়ার তেল কেনার ব্যাপারে নড়েচড়ে ওঠেছে। বাংলাদেশ অন্য অনেক দেশের মতোই সম্ভবত গত এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে মারাত্মক জ্বালানি সংকটে ভুগছে। একদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ধাই ধাই করে বেড়ে গেছে; একই সময়ে চলছে ডলার সংকট। ডলারের উচ্চমূল্যের কারণে বাংলাদেশের অনেক সরকারি ব্যাংক এমনকি সরকারি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ক্রয়ের জন্য এলসি খুলতে চাচ্ছে না, এ খবর বুধবারের আছে। এর আগে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন বা বিপিসি জানিয়েছিল, ডলার সংকটে

তারাও নতুন করে তেল আমদানির জন্য এলসি খুলতে পারছে না। এ পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য সরকার গত ৫ আগস্ট সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম অভ্যন্তরীণ বাজারে প্রায় ৫০ শতাংশ বাড়িয়েছে। কিন্তু তাতে সৃষ্টি হয়েছে আরেক সমস্যা। এর ফলে সব ধরনের নিত্যপণ্যের দাম আরেক দফা বেড়েছে, যা গত কয়েক মাস ধরেই সাধারণের নাগালের বাইরে ছিল। এদিকে জ্বালানি সংকটে বিদ্যুতের উৎপাদনও কমিয়ে দিয়েছে সরকার। ফলে রাজধানীসহ দেশের প্রায় সব অঞ্চলে লোডশেডিংয়ের হার দারুণভাবে বেড়ে গেছে। সব মিলিয়ে জনঅসন্তোষ আঁচ করে প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে প্রায় সব মন্ত্রী গত কিছুদিন ধরে বলতে শুরু করেছেন, অচিরেই জ্বালানি তেলের দাম কমিয়ে আনা হবে। কিন্তু সমস্যা হলো

বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম এখন কমতির দিকে হলেও এখনও অপরিশোধিত তেলের দাম ব্যারেলপ্রতি ৯০ ডলারের ওপরে; আর যেমনটা আগে বলা হয়েছে, পরিশোধিত তেলের দাম- যা বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি কেনে- ১৩৫ ডলার। বাংলাদেশের বাজারে এখন যে তেল আছে, তা কেনা হয়েছিল প্রতি ব্যারেল ১৪০ ডলারে। এত উচ্চমূল্য দিয়ে তেল কেনা বাংলাদেশের পক্ষে অন্তত বর্তমানে সম্ভব নয়। তাই তাকে সস্তা তেলের উৎস খুঁজতে হচ্ছে। আর এ পরিপ্রেক্ষিতেই রাশিয়ার তেল কেনার সিদ্ধান্ত বাংলাদেশ সরকারকে একটু দম নেওয়ার সুযোগ দিতে পারে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেওয়া নানা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞার কারণে রাশিয়া বর্তমানে সহজে তার তেল বিক্রি করতে পারছে না। তাই বিভিন্ন দেশকে সে অনেক কনসেশনে

তেল বিক্রির প্রস্তাব দিচ্ছে। এ সুবর্ণ সুযোগ ইতোমধ্যে চীন ও ভারত লুফে নিয়েছে। জানা গেছে, ভারত রাশিয়ার কাছ থেকে অপরিশোধিত তেল কিনছে আন্তর্জাতিক বাজার মূল্যের চেয়ে অন্তত ৩০ শতাংশ কম দামে। এ কারণে যেখানে রাশিয়া থেকে ভারতের তেল আমদানি ফেব্রুয়ারিতেও ছিল শূন্যের কাছাকাছি, সেখানে মার্চ থেকে তা বাড়তে বাড়তে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্থানে উঠে আসে। বিবিসি পরিবেশিত এক তথ্যে জানা যায়, আগস্ট পর্যন্ত ভারত রাশিয়া থেকে যে পরিমাণ তেল কিনবে, তা দেশটি ২০২১ সালের মোট তেল আমদানির সমান। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের খবর অনুসারে, রাশিয়া এর আগে অপরিশোধিত তেলের নমুনাও পাঠিয়েছে। তা চট্টগ্রামে অবস্থিত আমাদের জ্বালানি তেল শোধনাগারে পরিশোধনযোগ্য কিনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। বর্তমানে

রাশিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক যতটা উষ্ণ এবং তেল বেচা রাজস্ব রাশিয়ার যতটা প্রয়োজন তাতে হয়তো বাংলাদেশের রাশিয়ার তেল কেনার ভাবনা ব্যাটেবলে হয়ে যেতে পারে। যদিও দাম পরিশোধের প্রক্রিয়া নিয়ে একটা জটিলতা তৈরি হতে পারে। বিষয়টা হলো, নিষেধাজ্ঞার কারণে প্রচলিত আন্তর্জাতিক কোনো লেনদেন প্রক্রিয়ায় রাশিয়া অংশ নিতে পারে না। ফলে ডলার বা ইউরোতে তেলের দাম পরিশোধ বাংলাদেশের জন্য প্রায় অসম্ভব। রাশিয়া অবশ্য দুই দেশের মুদ্রায় অর্থাৎ রুবল-টাকা বিনিময়ে রাজি বলে মন্ত্রী জানিয়েছেন। বর্তমানে সে সম্ভাবনাই বাংলাদেশ ব্যাংককে পরীক্ষা করতে দেখতে বলা হয়েছে বলে মন্ত্রী মঙ্গলবারের ব্রিফিংয়ে জানিয়েছেন। বাংলাদেশ রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল আনতে সক্ষম হোক এটা আমরা চাই। কিন্তু আমাদের কৌতূহলের জায়গা

হলো, যুক্তরাষ্ট্র যদি এ ক্ষেত্রে বাগড়া দেয় বাংলাদেশ তা এড়াবে কীভাবে? গত জুনেও কিন্তু রাশিয়া বাংলাদেশের কাছে অপরিশোধিত তেল বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছিল। আমাদের মনে আছে, এ প্রসঙ্গে ৮ জুলাই বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্পষ্ট ভাষায় বলেছিলেন, আমেরিকার নিষেধাজ্ঞার কারণে বাংলাদেশ রাশিয়া থেকে তেল কিনবে না। এখন দেশটি সেই তেল কেনার সাহস পাচ্ছে কোত্থেকে? যদিও পরিকল্পনামন্ত্রী এমন এক প্রশ্নের উত্তরে বলেছেন, আমেরিকা ইদানীং এ বিষয়ে একটু নমনীয় হয়েছে, বাংলাদেশের এ সাহসের উৎস হয়তো অন্য খানে। স্মরণ করা যেতে পারে, ভারত যখন গত মে মাসে রাশিয়ার তেল কেনার তোড়জোড় শুরু করে তখন বাইডেন প্রশাসন একটু কড়া ভাষায়ই ভারতকে জানিয়েছিল রাশিয়ার তেল কিনতে গিয়ে সীমা অতিক্রম

করলে ভারতকে তার জন্য ভুগতে হবে। আমেরিকার সে চোখ রাঙানি ভারত ভয় পায়নি, বরং এক পর্যায়ে মার্কিন কংগ্রেসের যে আইন দেখিয়ে ভারতকে রাশিয়ার তেল না কেনার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল সে আইনেই পরিবর্তন এলো। অর্থাৎ বোঝা গেল, আন্তর্জাতিক রাজনীতির প্রয়োজনেই ভারতকে আমেরিকার দরকার; তাই সে কোনোভাবেই ভারতকে হারাতে চায় না। বাংলাদেশও কী তার ভূরাজনৈতিক অবস্থানের কারণে এমন একটা সুবিধা পেতে পারে? বিশেষ করে র‌্যাবের বর্তমান ও সাবেক নেতাদের ওপর মানবাধিকার প্রশ্নে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার পর আমেরিকার সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক বেশ টানাপোড়েনের মধ্যে পড়ে যায়, এ কথা স্বীকার করতেই হবে। তবে এরপর বাইডেন প্রশাসনের সঙ্গে সরকার বিভিন্নভাবে এনগেজমেন্ট বাড়িয়ে দেয় এমনটাও আমরা দেখেছি। ওই নিষেধাজ্ঞার পর আমাদের উচ্চপদের লোকেরা যেমন আমেরিকা সফর করে বাইডেন প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছেন, তেমনি মার্কিন বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাও এ দেশ সফর করেছেন। এসবেরও একটা ফল আছে বলে মনে হচ্ছে। যে কারণেই রাশিয়ার তেল কেনার বিষয়ে বাংলাদেশ সাহসী হয়ে উঠুক, সরকার যদি সিদ্ধান্তটি কার্যকর করতে সক্ষম হয় তাহলে অন্তত এটা বোঝা যাবে, বিশ্বরাজনীতির খেলায় বাংলাদেশ এখন আর স্রেফ দর্শক নয়।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
চিরিরবন্দর দুই কেজি গাঁজা ও মাদক বিক্রির টাকাসহ গ্রেফতার দুই সম্প্রতি কুড়িয়ে পাওয়া সেই টাকার মালিক কে খোঁজে না পেয়ে অন্ধ হাফেজের চিকিৎসার জন‍্য দিলেন সৌরভ।। কলারোয়ায় ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রমে দায়িত্বপ্রাপ্তদের সাথে মতবিনিময় টিউবওয়েল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী গণসংযোগ চালাচ্ছেন আলহাজ্ব শেখ আমজাদ হোসেন ইউপি সদস্য ওমর ফারুককের হত্যা মামলায় এক যুবককে মৃত্যুদণ্ড সমাবেশ শুরুর আগেই হাজারীবাগে আ.লীগ-বিএনপির সংঘর্ষ মামলায় আসামি মৃত ব্যক্তি, ছাত্রলীগকর্মীও কুমিল্লা পিবিআই কার্যালয় থেকে অস্ত্র-গুলিসহ মালামাল চুরি ইউক্রেন ইস্যুতে ঢাকার সহযোগিতা চায় টোকিও এবার কানাডা যাচ্ছেন মুহিবুল্লাহর মাসহ ১৪ স্বজন পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিতে যাবে না আওয়ামী লীগ সংস্কৃতিজনদের ভালোবাসায় সিক্ত সাফজয়ী নারী ফুটবলাররা মাদক মামলায় পুলিশ-র‌্যাবের সদস্যও কারাগারে আছেন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সচিবদের জন্য সতর্কবার্তা স্বাক্ষর যাঁর দায়িত্ব তাঁর তাল মেলাতে পারছে না দেশের পর্যটন খাত ওডেসায় সামরিক স্থাপনায় আঘাত হানল রাশিয়ার ড্রোন হাজারীবাগে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ রাশিয়ার স্কুলে ভয়াবহ হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩ বিপিএলে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক কত, জানাল বিসিবি ‘বড় ভাইদের আশ্বাসে’ অনশন বাতিল করে ক্যাম্পাসে ফিরলেন ইডেনের সেই নেত্রীরা