সাংবাদিক রিশাদকে মারধর, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম কারাগারে - ডোনেট বাংলাদেশ

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার ছেলে ও ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রিশাদ হুদাকে মারধরের অভিযোগে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম আহম্মেদকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২১ নভেম্বর) ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূর শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।
আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র ঢাকা পোস্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, এদিন শাহবাগ থানার মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আলামিন আসামি নাজিম আহমেদ তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

শনিবার (২০ নভেম্বর) রাতে শাহবাগ থানায় এ বিষয়ে মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম আহম্মেদ, সহযোগী তানভীর ও ইউসুফসহ ১২ জনকে আসামি করা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেল ৪টার দিকে রিশাদ মোটরসাইকেলে শাহবাগের দিকে যাচ্ছিলেন। একটি প্রাডো গাড়ি সড়কের বামের রাস্তা আটকায়। এ সময় রিশাদ হর্ন দিলে গাড়ি থেকে নাজিমসহ দুই জন নেমে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং তার হেলমেট খুলে সেটা দিয়ে তাকে মারধর করেন। লোকজন জড়ো হয়ে গেলে রিশাদের মোটরসাইকেলের চাবি নিয়ে নেন নাজিম।
এজাহার সূত্রে আরও জানা যায়, পরে দুঃখ প্রকাশ করার অভিনয় করে আসামি নাজিম মোটরসাইকেলের চাবি নিতে রিশাদকে আজিজ সুপার মার্কেটের সামনে যেতে বলে। চাবি আনার জন্য মার্কেটের দোকান মালিক সমিতির অফিসে গেলে আসামিদের ১০-১৫ জনের একটি দল দ্বিতীয় দফায় মারধর করে এবং সাংবাদিক রিশাদের মোবাইল ভেঙে ভয়ভীতি দেখায় ও হত্যার হুমকি দেয়। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নাজিম আহম্মেদকে গ্রেফতার করে।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার ছেলে ও ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রিশাদ হুদাকে মারধরের অভিযোগে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম আহম্মেদকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২১ নভেম্বর) ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূর শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।
আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র ঢাকা পোস্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, এদিন শাহবাগ থানার মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আলামিন আসামি নাজিম আহমেদ তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

শনিবার (২০ নভেম্বর) রাতে শাহবাগ থানায় এ বিষয়ে মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম আহম্মেদ, সহযোগী তানভীর ও ইউসুফসহ ১২ জনকে আসামি করা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেল ৪টার দিকে রিশাদ মোটরসাইকেলে শাহবাগের দিকে যাচ্ছিলেন। একটি প্রাডো গাড়ি সড়কের বামের রাস্তা আটকায়। এ সময় রিশাদ হর্ন দিলে গাড়ি থেকে নাজিমসহ দুই জন নেমে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং তার হেলমেট খুলে সেটা দিয়ে তাকে মারধর করেন। লোকজন জড়ো হয়ে গেলে রিশাদের মোটরসাইকেলের চাবি নিয়ে নেন নাজিম।
এজাহার সূত্রে আরও জানা যায়, পরে দুঃখ প্রকাশ করার অভিনয় করে আসামি নাজিম মোটরসাইকেলের চাবি নিতে রিশাদকে আজিজ সুপার মার্কেটের সামনে যেতে বলে। চাবি আনার জন্য মার্কেটের দোকান মালিক সমিতির অফিসে গেলে আসামিদের ১০-১৫ জনের একটি দল দ্বিতীয় দফায় মারধর করে এবং সাংবাদিক রিশাদের মোবাইল ভেঙে ভয়ভীতি দেখায় ও হত্যার হুমকি দেয়। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নাজিম আহম্মেদকে গ্রেফতার করে।

সাংবাদিক রিশাদকে মারধর, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম কারাগারে

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২২ নভেম্বর, ২০২১ | ২:৩৪ 99 ভিউ
বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার ছেলে ও ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রিশাদ হুদাকে মারধরের অভিযোগে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা নাজিম আহম্মেদকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। রোববার (২১ নভেম্বর) ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূর শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র ঢাকা পোস্টকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সূত্র জানায়, এদিন শাহবাগ থানার মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আলামিন আসামি নাজিম আহমেদ তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। শনিবার (২০ নভেম্বর) রাতে শাহবাগ থানায় এ বিষয়ে মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় ধানমন্ডি থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নাজিম আহম্মেদ, সহযোগী তানভীর ও ইউসুফসহ ১২ জনকে আসামি করা হয়। মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেল ৪টার দিকে রিশাদ মোটরসাইকেলে শাহবাগের দিকে যাচ্ছিলেন। একটি প্রাডো গাড়ি সড়কের বামের রাস্তা আটকায়। এ সময় রিশাদ হর্ন দিলে গাড়ি থেকে নাজিমসহ দুই জন নেমে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং তার হেলমেট খুলে সেটা দিয়ে তাকে মারধর করেন। লোকজন জড়ো হয়ে গেলে রিশাদের মোটরসাইকেলের চাবি নিয়ে নেন নাজিম। এজাহার সূত্রে আরও জানা যায়, পরে দুঃখ প্রকাশ করার অভিনয় করে আসামি নাজিম মোটরসাইকেলের চাবি নিতে রিশাদকে আজিজ সুপার মার্কেটের সামনে যেতে বলে। চাবি আনার জন্য মার্কেটের দোকান মালিক সমিতির অফিসে গেলে আসামিদের ১০-১৫ জনের একটি দল দ্বিতীয় দফায় মারধর করে এবং সাংবাদিক রিশাদের মোবাইল ভেঙে ভয়ভীতি দেখায় ও হত্যার হুমকি দেয়। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নাজিম আহম্মেদকে গ্রেফতার করে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ: