সাফ শিরোপা সারথি মাগুরার সাথী ও ইতি। – ডোনেট বাংলাদেশ

সাফ শিরোপা সারথি মাগুরার সাথী ও ইতি।

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ৮:৩৭ 13 ভিউ
সাফ গেমসে বাংলাদেশ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন দলে মাগুরার দুই মেয়ে ইতি রানী ও সাথী বিশ্বাস। দুজনের বাড়ি মাগুরা জেলা শ্রীপুর উপজেলার গোয়ালদহ গ্রামে। মাগুরা শহর থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দূরের গ্রাম গোয়ালদহ। শ্রীপুর উপজেলার এই গ্রামের দুই মেয়ে সাথী বিশ্বাস (১৭) ও ইতি রাণী মন্ডল (১৬) এবার নারী সাপ চ্যাম্পিয়ন দলে ছিলেন। গোলকিপার হিসাবে খেলা দুজনেই বড় হয়েছেন দরিদ্র পরিবারে। শুরুর দিকে মেয়েদের ফুটবল খেলা নিয়ে এলাকার লোকজন নেতিবাচক কথা বললেও এখন সবাই তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রশংসা করছেন। আনন্দ ও উচ্ছ্বাসে ভাসছেন ওই গ্রামসহ মাগুরা জেলা। সাথী ও ইতি ফুটবল খেলা শুরু করেছিলেন গোয়ালদাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে। সেখান থেকেই বিকেএসপি হয়ে এখন

জাতীয় দলের সদস্য। এবার মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিলেন সাথী বিশ্বাস। তবে সাফে খেলতে যাওয়ার কারণে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি। গোয়ালদহে শিক্ষকদের উদ্যোগে প্রথম যে মেয়েদের নিয়ে ফুটবল অনুশীলন শুরু হয় তাদের একজন সাথী বিশ্বাস। ওই সময় সাথীর পরিবার মেয়েকে ফুটবল খেলতে দিতে আগ্রহী ছিলেন না। মূলত শিক্ষকদের অনুরোধেই সাই দিয়েছিলেন তাঁর পরিবার। সাথী বিশ্বাস এর বাবার নাম বিদ্যুৎ কুমার বিশ্বাস। মাতা সুদেবী বিশ্বাস। বাজারে ছোট একটা স্টুডিও এর দোকান দিয়ে স্বল্প আয়েই চলে তাদের সংসার। বিদ্যুৎ বিশ্বাস বলেন, আমার মেয়ে এত দূরে যাবে কখনো ভাবিনি। দেশ-বিদেশে খেলতে যাচ্ছে এটা বিশাল কিছু মনে হয়। অপর দিকে ইতি রাণী মন্ডলের বাবার নাম মনোজিত মন্ডল।

পেশায় একজন ভ্যান চালক, পাশাপাশি ডেকোরেটর দোকানে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। মাঠে কোন জায়গা জমি নেই। মাত্র ১৮ শতক জমিতে ছোট দুটো টিনের ঘর আছে। চার মেয়ের মধ্যে তিনজনকে বিয়ে দিয়েছেন। ছোট মেয়ে ইতি রানী মন্ডল এখন বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের সদস্য। মনোজিৎ কুমার বলেন, গ্রামের দরিদ্র পরিবারের মেয়েদের নিয়ে নানা রকম দুশ্চিন্তায় ভুগতে হয় বাবা-মায়ের। বিয়ে দিতে না চাইলেও মানুষজন নানাভাবে চাপ দেয়। তবে ইতির মত হতে পারলে তাকে নিয়ে মা-বাবার আর চিন্তা নেই। স্থানীয় লোকজনের ভাষ্যমতে গোয়ালদহ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রভাস রঞ্জন দেবজ্যোতি ও সহকারী শিক্ষক শহিদুল ইসলামের উদ্যোগে এলাকায় মেয়েদের ফুটবল খেলা ও অনুশীলন শুরু হয়। দীর্ঘদিন

ধরে অনুশীলনের ফলে সফলতা এসেছে। জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে টুর্নামেন্ট চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পাশাপাশি এখন পর্যন্ত ওই বিদ্যালয় থেকে ১৪ জন মেয়ে বিকেএসপি তে সুযোগ পেয়েছে। তার মধ্যে ৮ জন সহ মোট ১০ টি মেয়ে বিভিন্ন বয়স ভিত্তিক জাতীয় দলে খেলছেন। প্রভাস রঞ্জন দেবজ্যোতি বলেন, মেয়েরা যে গ্রাম সহ মাগুরার নাম উজ্জ্বল করেছে এতে আমরা সবাই খুব খুশি। এই বিজয় উপলক্ষে সাথী ও ইতির পরিবারের সদস্য, গ্রামবাসী সহ মাগুরা জেলার সকলের মধ্যে এক উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
ওডেসায় সামরিক স্থাপনায় আঘাত হানল রাশিয়ার ড্রোন হাজারীবাগে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ রাশিয়ার স্কুলে ভয়াবহ হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩ বিপিএলে খেলোয়াড়দের পারিশ্রমিক কত, জানাল বিসিবি ‘বড় ভাইদের আশ্বাসে’ অনশন বাতিল করে ক্যাম্পাসে ফিরলেন ইডেনের সেই নেত্রীরা উপস্থাপনায় অপু বিশ্বাসের অভিষেক উন্মুক্ত হলো ‘শেখ হাসিনা- অ্যা ট্রু লিজেন্ড’ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র খালেদা জিয়াকে নিয়ে এবার স্প্যানিশ শিল্পীর গান সাংবাদিক রণেশ মৈত্র না ফেরার দেশে সাগর-রুনি হত্যা: ৯২ বারের মতো পেছাল তদন্ত প্রতিবেদন গুণগতমান সম্পন্ন বীজআখ উৎপাদন ও বিস্তারের কৌশল শীর্ষক ফরিদপুর চিনিকলে দিন ব্যাপি কর্মশালা কেন্দুয়ায় কৃষকলীগের ত্রি- বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত করোনায় একদিনে ছয়জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৭১৮ করতোয়ায় নৌকাডুবিতে মৃ‌ত বেড়ে ৩৯ জাইকার ৬০ কোটি ডলার বাজেট সাপোর্টের আশা রাশিয়ায় স্কুলে বন্দুক হামলায় নিহত ৬, আহত ২০ হারুন পেলেন মোটরসাইকেল, বাহার আনারস, দারা চশমা বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়ন শীর্ষে জনপ্রশাসন, তলানিতে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় ব্লক মার্কেটে ৭৭ কোটি টাকার লেনদেন আমরণ অনশনের হুমকি ইডেন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃতদের