হুমায়ূন আহমেদের আজ দশম মৃত্যুবার্ষিকী – ডোনেট বাংলাদেশ

হুমায়ূন আহমেদের আজ দশম মৃত্যুবার্ষিকী

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৮ জুলাই, ২০২২ | ৬:১৭ 35 ভিউ
নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের আজ( ১৯ জুলাই) দশম মৃত্যুবার্ষিকী। বাংলা গল্প উপন্যাসের অপ্রতিদ্বন্দ্বী কারিগর ২০১২ সালে এই দিনে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের বেলেভ্যু হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্হায় মৃত্যুবরন করেন। অগণিত পাঠক ভক্ত তাঁর সুস্হতা কামনা করেও তাকে ফেরাতে পারেনি। তিনি সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান। তাকে হারানোর শোকে এখন মুহ্যমান পাঠকরা। তিনি এখনও অগনিত পাঠকের হৃদয়ে বেঁচে আছেন। হুমায়ূন আহমেদ ৭০ দশকের সময় থেকে শুরু করে মৃত্যু অবধি তিনি ছিলেন বাংলা গল্প উপন্যাসের অপ্রতিদ্বন্দ্বী কারিগর। এই কালপর্বে তাঁর গল্প উপন্যাসের জনপ্রিয়তা ছিল তুলনারহিত। তিনি ১৯৭২ সালে প্রথম উপন্যাস লিখেন নন্দিত নরকে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা পরবর্তী অন্যতম শ্রেষ্ঠ ও জনপ্রিয়

লেখক হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। বাংলা কথা সাহিত্যে তিনি সংলাপপ্রধান নতুন শৈলীর জনক। অন্যদিকে তিনি আধুনিক বাংলা বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীর পথিকৃৎ। নাটক ও চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবেও তিনি সমাদৃত। তাঁর প্রকাশিত গ্রন্হের সংখ্যা তিন শতাধিক। তাঁর বেশ কিছু গ্রন্হ পৃথিবীর নানা ভাষায় অনূদিত হয়েছে,বেশ কিছু গ্রন্হ স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠ্যসূচির অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। মিসির আলি এবং হিমু তার সৃষ্ট অন্যতম দুটি জনপ্রিয় চরিত্র। হুমায়ূন আহমেদ ২০১১ সালে সেপ্টেস্বর মাসে মরনব্যাধি ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হন। এরপর তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে নিউইয়র্ক হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসাধীন অবস্হায় ২০১২ সালে ১৯ জুলাই রাত সাড়ে ১১ টার সময় তিনি শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ

করেন। ২৩ জুলাই দেশে ফিরিয়ে এনে ২৪ জুলাই তার গড়ে তোলা গাজীপুর নুহাশপল্লীতে দাফন করা হয়। হুমায়ূন আহমেদ ১৯৪৮ সালে ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুরে জন্মগ্রহন করেন। তাঁর প্রথম নাম ছিল শামসুর রহমান ও ডাক নাম কাজল। বাবা ফয়জুর রহমান আহমেদ উপবিভাগীয় পুলিশ অফিসার ছিলেন। ফয়জুর রহমান ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে পিরোজপুর মহকুমার উপবিভাগীয় পুলিশ অফিসার হিসেবে কর্মরত অবস্হায় শহীদ হন। তিনিও সাহিত্যানুরাগী মানুষ ছিলেন। তার লেখা "দ্বীপ নেভা যার ঘরে" গ্রন্হ নামে প্রকাশিত হয়েছিল। মা আয়েশা ফয়েজ শেষ জীবনে আত্মজীবনী গ্রন্হ "জীবন যে রকম" নামে রচনা করেন। হুমায়ূন আহমেদ তিন ভাই ও তিন

বোনের মধ্যে সবার বড় ছিলেন। তাঁর ছোট ভাই কথাসাহিত্যিক ড.জাফর ইকবাল ও কার্টুনিস্ট রম্যলেখক আহসান হাবীব। বাংলা সাহিত্যে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিসরূপ তিনি ১৯৯৪ সালে একুশে পদক, এছাড়া তিনি ১৯৮১ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কার, ১৯৯৪ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও বাচসাস পুরস্কার ১৯৮৮ সালে লাভ করেন। হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ তাঁর স্বপ্নের গড়া স্কুল শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠে শোকর‍্যালী, দোয়া মাহফিল ও কেন্দুয়া রিপোর্টার্স ক্লাব হুমায়ূন স্মরনে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল ও হুমায়ূনের লেখা গান পরিবেশন করবে। এছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচির মৃত্যুবার্ষিকী পালন করবে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
অর্থ পাচার দুর্নীতি লুটপাটে বাড়ছে মূল্যস্ফীতি সারা দেশে ব্যাংকের শাখা পর্যায়ে ডলার লেনদেনের সুযোগ ব্রয়লার মুরগি ২শ টাকা কেজি পেঁয়াজের হাফ সেঞ্চুরি এক ট্রলারে ধরা পড়ল ৬০ মণ ইলিশ, ১৪ লাখে বিক্রি তিন সেকেন্ডেই পালটে দেয় মোবাইল ফোনের আইএমইআই নম্বর সন্তানকে বিক্রির জন্য বাজারে তুললেন মা! বিদেশি চাপে সরকার বিক্ষোভ সমাবেশে ঝামেলা করছে না: মির্জা ফখরুল রাজনীতিতে সক্রিয় হচ্ছেন সোহেল তাজ চলমান সংকট মোকাবিলায় ৬ মাসের প্যাকেজ গ্রহণের প্রস্তাব জাসদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাপ্তাহিক ছুটি দুদিন করার চিন্তা বাংলাদেশের মানুষ সুখে আছে, বেহেশতে আছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী কৃষ্ণ সাগরে কমে গেছে রাশিয়ার বিমান বহরের ক্ষমতা সরকার হটাতে সব দলকে এক হয়ে আন্দোলন করতে হবে: মান্না আ.লীগ মাঠে নামলে বিএনপি অলিগলিও খুঁজে পাবে না: কাদের ‘জন্মদিন পালনের কথা বলে হোটেলে এনে নারী চিকিৎসককে খুন’ নির্বাচিত হয়েও ফখরুলের সংসদে না যাওয়া নিয়ে যা বললেন কাদের ইরানে ড্রোন প্রশিক্ষণ নিচ্ছে রাশিয়া: যুক্তরাষ্ট্র নাটোরে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশের বাঁধায় পন্ড মাগুরায় জেলা পরিষদের তৈরি স্থাপনা ভেঙ্গে দিল সড়ক বিভাগ শহরে আরও বাড়বে সংসদীয় আসন!