‘২০ হাজার কোটি টাকা বাঁচিয়েছেন শেখ হাসিনা’ – ডোনেট বাংলাদেশ

‘২০ হাজার কোটি টাকা বাঁচিয়েছেন শেখ হাসিনা’

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২৩ জুন, ২০২২ | ৮:১৫ 13 ভিউ
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, পদ্মা সেতু তৈরিতে কোনো বাড়তি অর্থ ব্যয় হয়নি। বরং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০ হাজার কোটি টাকা কম খরচ করেছেন। সাশ্রয় করেছেন এ টাকা। কেননা, হার্ডিঞ্জ ব্রিজ তৈরি করতে তখন লেগেছিল ৪ কোটি টাকার বেশি। ওই সেতুর দৈর্ঘ্য ১ দশমিক ৮ কিলোমিটার। স্বর্ণের দামের সঙ্গে তুলনা করে হিসাব করলে এখন ওই সেতু বানাতে খরচ লাগার কথা ৫৮ হাজার কোটি টাকা। ‘সেখানে পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য সাড়ে তিনগুণ বেশি। আবার রেল সেতুসহ দ্বিতল। হার্ডিঞ্জ ব্রিজ হচ্ছে শুধু রেল সেতু। সেখানে কোনো অ্যাপ্রোচ সড়কও নেই। সেই হিসাবে এখন পদ্মা সেতুর জন্য লাখ কোটি টাকার বেশি খরচ হওয়ার কথা। সেটি

হয়নি। বরং মূল সেতু নির্মাণে এ পর্যন্ত খরচ হয়েছে ১১ হাজার ৯৩৮ কোটি টাকা।’ বুধবার ‘বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে পদ্মা সেতুর অবদান’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিটিউশন মিলনায়তনে এ সেমিনারের আয়োজন করে আওয়ামী লীগের প্রচার-প্রকাশনা উপকমিটি। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী। প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সাহাব উদ্দিন চুপ্পুর সভাপতিত্বে সেমিনারে মুখ্য আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতির সভাপতি ড. আবুল বারকাত। আলোচক ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. খান মাহমুদ আমানত এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক পরিচালক ড. জামাল উদ্দিন আহমেদ। বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক

আবদুস সবুর। তথ্যমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু কখনো হতো না, যদি আমাদের একজন শেখ হাসিনা না থাকতেন। এই সেতুর মালিক জনগণ। সেতু তৈরি হয়েছে সবার জন্য। খালেদা জিয়ার জন্য, এমনকি মির্জা ফখরুলের জন্যও। বিএনপিকে দাওয়াতও দেওয়া হয়েছে। আপনারা সানন্দে আসুন। কিন্তু তার আগে জনগণের কাছে মাফ চেয়ে নিন। ড. আবুল বারকাত বলেন, সঠিক রাজনৈতিক নেতৃত্ব থাকলে যে অসম্ভবকে সম্ভব করা যায় তার প্রমাণ এই পদ্মা সেতু। নিজস্ব অর্থায়নে এটি সম্ভব নয় বলে সবাই মত দিলেও আমরা অর্থনীতি সমিতি হিসাব করে দেখিয়েছিলাম নিজস্ব অর্থে চারটি পদ্মা সেতু করা যায়। সেটিই হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ৫ বছর পর ২০২৭ সালের জিডিপিতে এ সেতু অবদান

রাখবে ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ। ৪০তম বছরে নিট লাভ হবে ১০ হাজার কোটি টাকা। ১০০তম বছরে প্রায় ১০ লাখ কোটি টাকার বেশি লাভ আসবে। অর্থনীতিবিদদের কথা কেউ শুনবেন না। পৃথিবীতে এমন কোনো দেশ নেই যেখানে অর্থনীতিবিদ ও বিশ্বব্যাংকের কারণে উন্নত হয়েছে।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


শীর্ষ সংবাদ:
টেক্সাসে লরি থেকে ৪৬ জনের মরদেহ উদ্ধার ফিলিপাইনে নোবেল জয়ী সাংবাদিক মারিয়া রেসার নিউজ সাইট বন্ধের নির্দেশ ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন বহুদূর বন্যা : বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাসে ফের শঙ্কা তবু থামছে না দামের ঘোড়া সুইডেন এবং ফিনল্যান্ডের ন্যাটোর সদস্যপদ পেতে সমর্থন দেবে তুরস্ক ক্ষোভে ফুঁসছে সারাদেশ শিক্ষক হেনস্তা ও হত্যা আইএমএফ থেকে ঋণ নিতে চাচ্ছে সরকার বুস্টার ডোজে গতি নেই সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী জাতিসংঘের মহাসাগর সম্মেলনে বাংলাদেশ করোনার সামাজিক সংক্রমণের শঙ্কা পুতিনকে জিততে দেবে না জি-৭ রাশিয়ার হামলায় সেভেরোদনেৎস্কের পর এবার পতনের মুখে লিসিচানস্ক সেন্সরে যাচ্ছে ‘পদ্মার বুকে স্বপ্নের সেতু’ ‘কীর্তিনাশার বুকে অমর কীর্তি’ সিলেটে বন্যার্তদের পাশে বিজিবি সদস্যরা স্বামীকে ছক্কা মারলেন পাকিস্তানের তারকা চরমপন্থা ঠেকাতে বাংলাদেশে স্থানীয় বিশেষজ্ঞ নিয়োগ দিয়েছে ফেসবুক যেসব কারণে পেপটিক আলসার হয়, চিকিৎসা কলারোয়া পৌর প্রেসক্লাবের কমিটি গঠনঃ সভাপতি ইমরান, সম্পাদক জুলফিকার নির্বাচিত রাণীশংকৈলে​​​​​​​ মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে কর্মশালা অনুষ্ঠিত