২২ ডিসেম্বর বাংলাদেশের ক্ষুদ্রতম দিন - ডোনেট বাংলাদেশ

পৃথিবী নিজের মেরুদণ্ডের উপর পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে ২৪ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে একবার আবর্তন করে। যার ফলে দিন-রাত্রি সংঘটিত হয়। আবার সূর্যের মহার্কষ বলের আকর্ষণে পৃথিবী নিজের অক্ষের উপর ঘুরতে ঘুরতে একটি নির্দিষ্ট পথে নির্দিষ্ট দিকে (ঘড়ির কাঁটার বিপরীতে) ৩৬৫ দিন ৫ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে সুর্যের চারদিকে ঘুরছে। যার ফলে পৃথিবীতে চারটি ঋতু গ্রীষ্ম কাল, শরৎকাল, শীতকাল ও বসন্তকালে পরিবর্তিত হয়। সমগ্র পৃথিবীর মধ্যে কোনো একটি স্থানকে নির্দিষ্ট করতে পৃথিবীকে কিছু কাল্পনিক রেখা দ্বারা বিভক্ত করা হয়েছে। এর মাধ্যমে উত্তর গোলার্ধ ও দক্ষিণ গোলার্ধ নির্ধারণ করা হয়েছে। ২৩ সেপ্টেম্বরের পর থেকে দক্ষিণ গোলার্ধে ক্রমশ সূর্যের দিকে

হেলতে থাকে। এই সময় দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্যের কাছে আসতে থাকে । উত্তর গোলার্ধ দূরে সরতে থাকে। ফলে দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্য লম্বভাবে কিরণ দিতে থাকে এবং উত্তর গোলার্ধ কোণ করে কিরণ দিতে থাকে। এতে উত্তর গোলার্ধে দিন ছোট এবং দক্ষিণ গোলার্ধে দিন বড় এবং রাত বড় হতে থাকে। এর মধ্যে ২২ ডিসেম্বর সূর্য মকরক্রান্তির উপর লম্বভাবে কিরণ দেয়। সেই দিন উত্তর গোলার্ধে ছোট দিন ও বড় রাত হয় । এ জন্য বাংলাদেশ তথা উত্তর গোলার্ধে শীতকাল বিরাজ করে। এই দিনকে দক্ষিণ অয়নান্ত বলে। তারপরের দিন থেকে পুনরায় সূর্য উত্তর দিকে আসতে থাকে। এভাবে আবর্তনের ফলে ২১ মার্চ ও ২৩ সেপ্টেম্বর নিরক্ষরেখার

উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় তাই এই দিন পৃথিবীর সর্বত্র দিন ও রাত্রি সমান হয় এবং ২১ জুন কর্কটক্রান্তি রেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় ফলে উত্তর গোলার্ধে দীর্ঘতম দিন ও ক্ষুদ্রতম রাত হয়।


মো: শফিকুল ইসলাম

শিক্ষক, দিঘুলীয়া শহীদ মিজানুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়

সদর, টাঙ্গাইল।

পৃথিবী নিজের মেরুদণ্ডের উপর পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে ২৪ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে একবার আবর্তন করে। যার ফলে দিন-রাত্রি সংঘটিত হয়। আবার সূর্যের মহার্কষ বলের আকর্ষণে পৃথিবী নিজের অক্ষের উপর ঘুরতে ঘুরতে একটি নির্দিষ্ট পথে নির্দিষ্ট দিকে (ঘড়ির কাঁটার বিপরীতে) ৩৬৫ দিন ৫ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে সুর্যের চারদিকে ঘুরছে। যার ফলে পৃথিবীতে চারটি ঋতু গ্রীষ্ম কাল, শরৎকাল, শীতকাল ও বসন্তকালে পরিবর্তিত হয়। সমগ্র পৃথিবীর মধ্যে কোনো একটি স্থানকে নির্দিষ্ট করতে পৃথিবীকে কিছু কাল্পনিক রেখা দ্বারা বিভক্ত করা হয়েছে। এর মাধ্যমে উত্তর গোলার্ধ ও দক্ষিণ গোলার্ধ নির্ধারণ করা হয়েছে। ২৩ সেপ্টেম্বরের পর থেকে দক্ষিণ গোলার্ধে ক্রমশ সূর্যের দিকে

হেলতে থাকে। এই সময় দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্যের কাছে আসতে থাকে । উত্তর গোলার্ধ দূরে সরতে থাকে। ফলে দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্য লম্বভাবে কিরণ দিতে থাকে এবং উত্তর গোলার্ধ কোণ করে কিরণ দিতে থাকে। এতে উত্তর গোলার্ধে দিন ছোট এবং দক্ষিণ গোলার্ধে দিন বড় এবং রাত বড় হতে থাকে। এর মধ্যে ২২ ডিসেম্বর সূর্য মকরক্রান্তির উপর লম্বভাবে কিরণ দেয়। সেই দিন উত্তর গোলার্ধে ছোট দিন ও বড় রাত হয় । এ জন্য বাংলাদেশ তথা উত্তর গোলার্ধে শীতকাল বিরাজ করে। এই দিনকে দক্ষিণ অয়নান্ত বলে। তারপরের দিন থেকে পুনরায় সূর্য উত্তর দিকে আসতে থাকে। এভাবে আবর্তনের ফলে ২১ মার্চ ও ২৩ সেপ্টেম্বর নিরক্ষরেখার

উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় তাই এই দিন পৃথিবীর সর্বত্র দিন ও রাত্রি সমান হয় এবং ২১ জুন কর্কটক্রান্তি রেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় ফলে উত্তর গোলার্ধে দীর্ঘতম দিন ও ক্ষুদ্রতম রাত হয়।


মো: শফিকুল ইসলাম

শিক্ষক, দিঘুলীয়া শহীদ মিজানুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়

সদর, টাঙ্গাইল।

নিউজ ডেক্স
আপডেটঃ ২০ ডিসেম্বর, ২০২১
৯:১৪ অপরাহ্ণ
64 ভিউ

২২ ডিসেম্বর বাংলাদেশের ক্ষুদ্রতম দিন

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ২০ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৯:১৪ 64 ভিউ
পৃথিবী নিজের মেরুদণ্ডের উপর পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে ২৪ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে একবার আবর্তন করে। যার ফলে দিন-রাত্রি সংঘটিত হয়। আবার সূর্যের মহার্কষ বলের আকর্ষণে পৃথিবী নিজের অক্ষের উপর ঘুরতে ঘুরতে একটি নির্দিষ্ট পথে নির্দিষ্ট দিকে (ঘড়ির কাঁটার বিপরীতে) ৩৬৫ দিন ৫ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ডে সুর্যের চারদিকে ঘুরছে। যার ফলে পৃথিবীতে চারটি ঋতু গ্রীষ্ম কাল, শরৎকাল, শীতকাল ও বসন্তকালে পরিবর্তিত হয়। সমগ্র পৃথিবীর মধ্যে কোনো একটি স্থানকে নির্দিষ্ট করতে পৃথিবীকে কিছু কাল্পনিক রেখা দ্বারা বিভক্ত করা হয়েছে। এর মাধ্যমে উত্তর গোলার্ধ ও দক্ষিণ গোলার্ধ নির্ধারণ করা হয়েছে। ২৩ সেপ্টেম্বরের পর থেকে দক্ষিণ গোলার্ধে ক্রমশ সূর্যের দিকে

হেলতে থাকে। এই সময় দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্যের কাছে আসতে থাকে । উত্তর গোলার্ধ দূরে সরতে থাকে। ফলে দক্ষিণ গোলার্ধ সূর্য লম্বভাবে কিরণ দিতে থাকে এবং উত্তর গোলার্ধ কোণ করে কিরণ দিতে থাকে। এতে উত্তর গোলার্ধে দিন ছোট এবং দক্ষিণ গোলার্ধে দিন বড় এবং রাত বড় হতে থাকে। এর মধ্যে ২২ ডিসেম্বর সূর্য মকরক্রান্তির উপর লম্বভাবে কিরণ দেয়। সেই দিন উত্তর গোলার্ধে ছোট দিন ও বড় রাত হয় । এ জন্য বাংলাদেশ তথা উত্তর গোলার্ধে শীতকাল বিরাজ করে। এই দিনকে দক্ষিণ অয়নান্ত বলে। তারপরের দিন থেকে পুনরায় সূর্য উত্তর দিকে আসতে থাকে। এভাবে আবর্তনের ফলে ২১ মার্চ ও ২৩ সেপ্টেম্বর নিরক্ষরেখার

উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় তাই এই দিন পৃথিবীর সর্বত্র দিন ও রাত্রি সমান হয় এবং ২১ জুন কর্কটক্রান্তি রেখার উপর লম্বভাবে কিরণ দেয় ফলে উত্তর গোলার্ধে দীর্ঘতম দিন ও ক্ষুদ্রতম রাত হয়।

মো: শফিকুল ইসলাম
শিক্ষক, দিঘুলীয়া শহীদ মিজানুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়
সদর, টাঙ্গাইল।

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:


































শীর্ষ সংবাদ:
আফগানিস্তানে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ২৬ শাবিপ্রবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাস মন্ত্রী-এমপির সই জালিয়াতি করে যেভাবে প্রতারণা করত ওরা ফেসবুকে সামাজিক নাকি অসামাজিক যোগাযোগ! অভিনেত্রী শিমুর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার এবার নারায়ণগঞ্জ মহানগর শ্রমিক লীগের কমিটি বিলুপ্ত জন্মনিয়ন্ত্রণে কনডম কেন জনপ্রিয়? ধরাশায়ী ৯৫ শতাংশ কেন্দ্রে জামাইয়ের পাতে ৩৬৫ পদের খাবার! রহস্যজনক কারণে জমা পড়েনি পিসিআর মেটাভার্সে ‘প্রথম’ বিয়ে দেখছে ভারত ডিসি সম্মেলন শুরু আজ তারাকান্দায় শীতবস্ত্র বিতরণ Police action at SUST:CU students condemn শ্যামনগরে গাঁজাও ইয়াবা উদ্ধার আটক-৬ অবৈধভাবে পাহাড় কাঁটার দায়ে রামগড়ে এক ব‍্যাক্তিকে ৬০হাজার টাকা জরিমানা রাজশাহী চারঘাট উপজেলার কাটাখালী থানাধীন মিরকামারিতে চলছে অবৈধ ভাবে পুকুর খনন হাটগাঙ্গোপাড়া সঃ প্রাঃ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহ্ফুজা ও শাহনাজ পারভীনের বিদায় সংবর্ধনা সাতক্ষীরায় গাঁজাসহ আটক-২ বাগমারায় চলতি মৌসুমে পেঁয়াজ চাষে ব্যস্ত কৃষকরা