সৌদি আরবে প্রবাসী সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ মালয়েশিয়ায় বাঙালি সংস্কৃতি তুলে ধরল শিক্ষার্থীরা - ডোনেট বাংলাদেশ

মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক উৎসবে দেশীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা। নিজেদের ইতিহাস ঐতিহ্য ভিনদেশিদের কাছে তুলে ধরার জন্য স্টল সাজিয়ে লোকশিল্প ও দেশীয় খাবারসহ নানা সামগ্রী প্রদর্শন করেছে তারা। এ উৎসবে সুদান, ফিলিস্তিন, পাকিস্তান, রাশিয়া, চীন, ভারত, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের ১৬০টি দেশের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়।

গত বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরের অদূরে সাইবারজায়ায় অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দেশের সংস্কৃতিকে পরিচয় করিয়ে দেয় লিমককউইং ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত উৎসবে অসাধারণ নৈপুণ্য প্রদর্শন করে ভিনদেশিদের নজর কেড়েছে তারা।

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের স্টলে দেশের সংস্কৃতি, সামাজিক ঐতিহ্য, লোকশিল্প, দেশীয় খাবার, সাংস্কৃতিক নিদর্শন, টাঙ্গাইলের জমিদারবাড়িসহ নানা সামগ্রী স্থান পায়। এ ছাড়া সাংস্কৃতিক পর্বে নাচ-গানের মাধ্যমে বাংলাদেশের গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়।।

অনুষ্ঠানের কোরিওগ্রাফি প্রসঙ্গে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী তাহসিন পারভীন তাসিকা বলেন, ‘আমরা নাচ-গানের মাধ্যমে বাংলাদেশকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। এবার আমাদের থিম ছিল রাজবাড়ী। আমরা বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে এখানে দেখাতে পারছি, এটা আমাদের জন্য অনেক গর্বের।’

বাংলাদেশ কমিউনিটি লিমককউইং প্রেসিডেন্ট সাইফুল হক সান বলেন, ‘প্রবাসে এসে বাংলাদেশকে আমরা সবচেয়ে মিস করি। যখন বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের পতাকা ওড়াতে পারি, তখন আমাদের গর্বের সীমা থাকে না।’

উৎসব চলাকালে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের স্টল পরিদর্শন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন দেশটির মন্ত্রীসহ কুয়ালালামপুর বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সেক্রেটারি রুহুল আমিন ও বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতারা

মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক উৎসবে দেশীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা। নিজেদের ইতিহাস ঐতিহ্য ভিনদেশিদের কাছে তুলে ধরার জন্য স্টল সাজিয়ে লোকশিল্প ও দেশীয় খাবারসহ নানা সামগ্রী প্রদর্শন করেছে তারা। এ উৎসবে সুদান, ফিলিস্তিন, পাকিস্তান, রাশিয়া, চীন, ভারত, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের ১৬০টি দেশের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়।

গত বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরের অদূরে সাইবারজায়ায় অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দেশের সংস্কৃতিকে পরিচয় করিয়ে দেয় লিমককউইং ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত উৎসবে অসাধারণ নৈপুণ্য প্রদর্শন করে ভিনদেশিদের নজর কেড়েছে তারা।

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের স্টলে দেশের সংস্কৃতি, সামাজিক ঐতিহ্য, লোকশিল্প, দেশীয় খাবার, সাংস্কৃতিক নিদর্শন, টাঙ্গাইলের জমিদারবাড়িসহ নানা সামগ্রী স্থান পায়। এ ছাড়া সাংস্কৃতিক পর্বে নাচ-গানের মাধ্যমে বাংলাদেশের গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়।।

অনুষ্ঠানের কোরিওগ্রাফি প্রসঙ্গে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী তাহসিন পারভীন তাসিকা বলেন, ‘আমরা নাচ-গানের মাধ্যমে বাংলাদেশকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। এবার আমাদের থিম ছিল রাজবাড়ী। আমরা বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে এখানে দেখাতে পারছি, এটা আমাদের জন্য অনেক গর্বের।’

বাংলাদেশ কমিউনিটি লিমককউইং প্রেসিডেন্ট সাইফুল হক সান বলেন, ‘প্রবাসে এসে বাংলাদেশকে আমরা সবচেয়ে মিস করি। যখন বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের পতাকা ওড়াতে পারি, তখন আমাদের গর্বের সীমা থাকে না।’

উৎসব চলাকালে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের স্টল পরিদর্শন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন দেশটির মন্ত্রীসহ কুয়ালালামপুর বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সেক্রেটারি রুহুল আমিন ও বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতারা

সৌদি আরবে প্রবাসী সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ মালয়েশিয়ায় বাঙালি সংস্কৃতি তুলে ধরল শিক্ষার্থীরা

ডেস্ক নিউজ
আপডেটঃ ১৮ নভেম্বর, ২০২১ | ৪:৫৯ 34 ভিউ

মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক উৎসবে দেশীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা। নিজেদের ইতিহাস ঐতিহ্য ভিনদেশিদের কাছে তুলে ধরার জন্য স্টল সাজিয়ে লোকশিল্প ও দেশীয় খাবারসহ নানা সামগ্রী প্রদর্শন করেছে তারা। এ উৎসবে সুদান, ফিলিস্তিন, পাকিস্তান, রাশিয়া, চীন, ভারত, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের ১৬০টি দেশের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। গত বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরের অদূরে সাইবারজায়ায় অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দেশের সংস্কৃতিকে পরিচয় করিয়ে দেয় লিমককউইং ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত উৎসবে অসাধারণ নৈপুণ্য প্রদর্শন করে ভিনদেশিদের নজর কেড়েছে তারা। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের স্টলে দেশের সংস্কৃতি, সামাজিক ঐতিহ্য, লোকশিল্প, দেশীয় খাবার, সাংস্কৃতিক নিদর্শন, টাঙ্গাইলের জমিদারবাড়িসহ নানা সামগ্রী স্থান পায়। এ ছাড়া সাংস্কৃতিক পর্বে নাচ-গানের মাধ্যমে বাংলাদেশের গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়।। অনুষ্ঠানের কোরিওগ্রাফি প্রসঙ্গে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী তাহসিন পারভীন তাসিকা বলেন, ‘আমরা নাচ-গানের মাধ্যমে বাংলাদেশকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। এবার আমাদের থিম ছিল রাজবাড়ী। আমরা বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে এখানে দেখাতে পারছি, এটা আমাদের জন্য অনেক গর্বের।’ বাংলাদেশ কমিউনিটি লিমককউইং প্রেসিডেন্ট সাইফুল হক সান বলেন, ‘প্রবাসে এসে বাংলাদেশকে আমরা সবচেয়ে মিস করি। যখন বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের পতাকা ওড়াতে পারি, তখন আমাদের গর্বের সীমা থাকে না।’ উৎসব চলাকালে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের স্টল পরিদর্শন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন দেশটির মন্ত্রীসহ কুয়ালালামপুর বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সেক্রেটারি রুহুল আমিন ও বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতারা

দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ট্যাগ:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ: